বাংলা চর্চা ২৪ । নজরুলের বাংলায় বিদেশি শব্দ (১)

অশোক সেনগুপ্ত
আমাদের ভারত, ২৩ মে: “আমি বেদুঈন, আমি চেঙ্গিস,
আমি আপনারে ছাড়া করি না কাহারে কুর্ণিশ!“

শতবর্ষ পূর্ণ হল নজরুল ইসলামের ‘বিদ্রোহী’-র। ২৪ মে নজরুল ইসলামের জন্মদিন। বাংলা শব্দমালায় অজস্র বিদেশি শব্দ ঢুকে আছে। মিশে গিয়েছে আমাদের প্রাত্যহিক কথায়। সেই তালিকা অতি দীর্ঘ। এই যে ওপরের দুটি লাইন, বেদুঈন এক যাযাবর জাতি। এটি একটি আরবি কথা। চেঙ্গিসও বহিরাগত।
কুর্ণিশ ফার্সি শব্দ।

আবার এই কবিতাতেই “খোদার আসন ‘আরশ’ ছেদিয়া“— আরবি-তে খোদা মানে আসল কর্তা, আরবি-তে আরশ মানে সিংহাসন। আইন, কানুন-সহ বেশ কিছু বিদেশি শব্দ রয়েছে শতবর্ষের এই বিখ্যাত কবিতায়।

‘নজরুল-কাব্যে ভাষা, শব্দ ও ছন্দ’-তে (‘যায় যায় দিন’, ২১ মে, ২০২১) জাহান আরা খাতুন লিখেছেন, “নজরুল ইংরেজি সাহিত্যের সঙ্গে ভালোভাবে পরিচিত ছিলেন না। এ জন্য তাঁর পদবিন্যাস রীতিতে ইংরেজি বিধানের অভাব পরিলক্ষিত হয়। তবে আরবি, ফারসি ভাষার সঙ্গে তাঁর নিবিড় যোগাযোগ ছিল। হিন্দু, মুসলিম ঐতিহ্য সম্পর্কে তিনি অবগত ছিলেন। এ জন্য তাঁর শব্দভান্ডার ছিল সমৃদ্ধ। ভাষা স্বাতন্ত্র্যে দীপ্ত। নজরুল তৎসম, তদ্ভব, দেশি, বিদেশি সব রকম শব্দই কাব্যে ব্যবহার করেছেন। আরবি, ফারসি শব্দের নৃত্যচপল তরঙ্গদোলায় তার দরদি মনের অভিপ্রায় ব্যক্ত হয়েছে। উদাহরণ হিসাবে
উল্লেখ করেছেন ‘দুজনার হবে বুলন্দ নসিব লাখে লাখে হবে বদনসিব’ (ঈদ মোবারক), ‘হেরেম বাঁদীরা দেরেম ফেলিয়া মাগিছে দিল নওরোজের নও মফিল’(নওরোজ), ‘তেরিয়া হইয়া হাঁকিল মোল্লা ভ্যালা হল দেখি ল্যাঠা’ (মানুষ কবিতায় গ্রাম্য শব্দ) প্রভৃতি হরেক বিদেশি শব্দ।
***

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here