প্রজাতন্ত্র দিবসে ফের বাতিল বাংলার ট্যাবলো, প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি মুখ্যমন্ত্রীর

রাজেন রায়, আমাদের ভারত, কলকাতা, ১৬ জানুয়ারি: ২০২১ সালে সাধারণতন্ত্র দিবসে বাতিল করা হয়েছিল পশ্চিমবঙ্গের কন্যাশ্রী ট্যাবলো। এবার আবার নেতাজির জন্ম জয়ন্তীতে বাতিল পশ্চিমবঙ্গের ট্যাবলো। এই নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

রবিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে লেখা এই চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উল্লেখ করেন, কী কারণে ২৬ জানুয়ারি দিল্লির কুচকাওয়াজ থেকে বাদ পড়ল বাংলার ট্যাবলো তার কারণ ব্যাখ্যা করেনি কেন্দ্র। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর চিঠিতে লেখেন, ‘কেন্দ্রের সিদ্ধান্তে আমি হতবাক ও ব্যথিত। বাংলার মানুষ কেন্দ্রের আচরণে ব্যথিত। সাধারণতন্ত্র দিবসের ট্যাবলো হিসাবে বাংলা যে প্রস্তাব পাঠিয়েছিল কেন্দ্র তা খারিজ করে দিয়েছে। আরও বেশি অবাক লেগেছে কেন কেন্দ্র বাংলার ট্যাবলো বাতিল করে দিল তার কোনও যুক্তি বা কারণ উল্লেখ করেনি।’

মমতা লেখেন, নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর ১২৫তম জন্মজয়ন্তীকে সামনে রেখে এবার বাংলা থেকে ট্যাবলো প্রদর্শনের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। একইসঙ্গে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, স্বামী বিবেকানন্দ, দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাস, শ্রী অরবিন্দ, মাতঙ্গিনী হাজরা, নজরুল, বীরসা মুণ্ডার মতো ভারত মাতার বীর সন্তানদের পোর্ট্রেট তুলে ধরার পরিকল্পনা ছিল দিল্লির কুচকাওয়াজে।

প্রধানমন্ত্রীর প্রতি মমতার বার্তা, ‘ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামে বাংলার বীরদের অবদান চিরস্মরণীয়। ভারতমাতার শৃঙ্খল মোচনে বাংলার স্বাধীনতা সংগ্রামীদের লড়াই কোনও দিনও ভোলা যাবে না। অথচ সাধারণতন্ত্র দিবসের উদযাপনের যে জাতীয় অনুষ্ঠান সেখানে এই বীর সংগ্রামীদের কোনও স্থান দেওয়া হল না। এটা আমাকে হতবাক করছে!’

গত বছরই রাজ্য সরকারের কন্যাশ্রী, সবুজসাথী, জল ধরো জল ভরোর মতো প্রকল্পকে দেশবাসীর সামনে তুলে ধরতে চেয়েছিল নবান্ন। কারণ, এই প্রত্যেক প্রকল্প সাধারণ মানুষের উন্নয়নের স্বার্থে ঘোষণা করা হয়েছে। কিন্তু কেন্দ্র রাজ্যের প্রস্তাব নাকচ করে দেয়। বাংলার কোনও ট্যাবলোকে গত বছর স্থান দেওয়া হয়নি দিল্লির রাজপথে। বার বার প্রজাতন্ত্র দিবসে পশ্চিমবঙ্গের ট্যাবলো বাতিল হওয়ার ঘটনা যে রাজনীতির জন্ম দিচ্ছে তা বলাই বাহুল্য।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here