কৃষ্ণনগরে অসংগঠিত শ্রমিক পরিবারদের খাবার বিতরণ ভারত সেবাশ্রমের

নীল বনিক, আমাদের ভারত, কলকাতা, ৫ মে: করোনায় কাজ হারানো অসংগঠিত শ্রমিকদের পরিবারের পাশে দাঁড়ালো ভারত সেবাশ্রম সংঘ। মারণ ভাইরাসের কারণে নদীয়া জেলার বহু অসংগঠিত শ্রমিকরা বেকার। তাদের দুবেলা দুমুঠো খাবারের সংস্থান করতে গিয়ে ঘুম চলে গিয়েছে। সেইসব অসংগঠিত শ্রমিক ও ভবঘুরেদের মুখে অন্ন তুলে দেবার জন্য দিনরাত পরিশ্রম করছেন ভারত সেবাশ্রমের সংঘের সন্ন্যাসীরা।

মঙ্গলবার কৃষ্ণনগরে দুঃস্থ ও অসংগঠিত শ্রমিক পরিবারের মুখে খাবার তুলে দিলেন ভারত সেবাশ্রমের সন্ন্যাসী ও স্বেচ্ছাসেবকরা। এদিন দুপুরে কৃষ্ণনগর জেলখানার মাঠে তাদের হাতে রান্না করা খাবার তুলে দেওয়া হয়। এছাড়া শহরের বাগদিপাড়া, রাধানগর, ঘূর্ণি, হালদার পাড়া সহ একাধিক জায়গায় রান্না করা খাবার বিতরণ করেন আশ্রমের স্বেচ্ছাসেবকরা। ভাত, ডাল, সবজি দেওয়া হয় শহরের দুঃস্থ মানুষদের মধ্যে। এদিন থেকে শুক্রবার পর্যন্ত কৃষ্ণনগর শহরে এভাবেই খাবার বিতরণ করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বামী দিব্যজ্ঞানানন্দ মহারাজ।

মহারাজ বলেন, ভারত সেবাশ্রম সংঘের মূল কথা, মানুষের সেবা করো। মানুষকে ভালোবাসা। করোনার সময় মানুষ অসহায় হয়ে পড়েছে। এই সময় মানুষের পাশে দাঁড়াতে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় সেবার কাজে ব্রতী হয়েছি আমরা। আজ কৃষ্ণনগর শহরের হিন্দু মিলন মন্দিরে মানুষের সেবায় নিয়জিত হয়েছি। ভারত সেবাশ্রম সংঘ এই শহরের মানুষের মুখে অন্ন তুলে দেবার যথাসাধ্য চেষ্টা চালাচ্ছে। তিনি আরও জানান, শুধু কৃষ্ণনগর শহর নয়, নদিয়ার প্রাচীন শহর নবদ্বীপেও তাঁরা খাবার বিতরণ করবেন। এছাড়াও নবদ্বীপ লাগোয়া পূর্ববর্ধমানের একাধিক স্থানে খাবার বিতরণ করা হবে। রাজা কৃষ্ণচন্দ্রের শহরে মানুষের মুখে অন্ন তুলে দিতে সকাল থেকেই অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন হিন্দু মিলন মন্দিরের সম্পাদক গৌতম চম্পটি, কৃষ্ণনগর হিন্দু মিলন মন্দির ও বিশিষ্ট সমাজসেবী শুভ্রকান্তি দত্ত বলে জানিয়েছেন দিব্যজ্ঞানানন্দ মহারাজ।
(ছবি, আকাশ বিশ্বাস।)

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here