সীমান্তে আটকে থাকা রোগীদের জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে আবেদন ভারতী ঘোষের

আমাদের ভারত, মেদিনীপুর, ২৮ এপ্রিল: ভেলোর থেকে চিকিৎসা করিয়ে ফেরার পথে পশ্চিম মেদনীপুর জেলার সীমান্তে আটকে থাকা রোগী ও রোগীর পরিজনদের এ রাজ্যে ঢুকতে দেওয়ার জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে আবেদন জানালেন ভারতী ঘোষ। তিনি এক ভিডিও বার্তায় বলেছেন, ভেলোর থেকে সেখানকার ডিস্ট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেটের অনুমতিপত্র নিয়ে এ রাজ্যের বাসিন্দারা রাজ্যে ফেরার সময় পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার দাঁতনের সনাকোনিয়া সীমান্তে প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদের আটকে দেওয়া হয়েছে। সেখানে বেশ কয়েকটি পরিবার রোগীদের নিয়ে অসহায় অবস্থায় চার পাঁচ দিন পড়ে রয়েছেন। এ রাজ্যের প্রশাসন তাদের রাজ্যে ঢুকতে দিচ্ছে না। ভারতী ঘোষ বলেন, এক একটি পরিবার প্রায় নব্বই হাজার টাকা করে গাড়ি ভাড়া দিয়ে এ রাজ্যে ফিরছিলেন। তারা চার পাঁচ দিন সোনাকোনিয়া সীমান্তে আটকে রয়েছেন। সেখানে  খাবার, রোগীদের ওষুধ পাচ্ছেন না বলে তারা কান্নাকাটি এবং হাহাকার করছেন।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে ভারতী ঘোষ প্রশ্ন তুলেছেন, রাজ্যের অসহায় মানুষদের জন্য আপনার কি কোনো দায়িত্ব নেই? তাদের খাবার দেওয়া, তাদের সঙ্গে থাকা রোগীরা যাতে ওষুধ পত্র কিনতে পারেন তার ব্যবস্থা করা সরকারের খুবই প্রয়োজন ছিল। অন্য রাজ্য থেকে আসার কারণে তাদের চার পাঁচ দিন সীমান্তে আটকে না রেখে রাজ্যে ঢুকতে দিয়ে তাদের সংক্রমণ পরীক্ষা করা এবং তেমন কিছু না পাওয়া গেলে তাদের বাড়ি পাঠানোর ব্যবস্থা করা কি সরকারের দায়িত্ব নয়?
ভারতী ঘোষের প্রশ্ন, চার পাঁচ দিন ধরে রোগীকে সঙ্গে নিয়ে আত্মীয় পরিজন সীমান্তে কেন হাহাকার করবে? মুখ্যমন্ত্রী আপনি এটা কি ধরনের সরকার চালাচ্ছেন? নিজের ক্ষমতা আর প্রচার হলেই কি সব হয়ে যায়? 

মুখ্যমন্ত্রীকে তিনি আবেদন জানিয়ে ভিডিও বার্তায় বলেছেন, এই কঠিন মুহূর্তে জাতীয় সড়কে আটকে থাকা ওইসব পরিবারগুলি যাতে রাস্তায় পড়ে মরে না যান সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করে আপনি তাদের বাঁচান।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here