টাকার মালায় ভীম পূজা

64

আমাদের ভারত, পূর্ব মেদিনীপুর, ৬ ফেব্রুয়ারি:
হাজার হাজার টাকার মালা পরিয়ে শুরু হয়েছে ভীম পূজা। ধর্মীয় কুসংস্কার হলেও এই টাকাতেই কিন্তু উন্নয়ন হচ্ছে এলাকার। প্রায় সাড়ে তিন শত বছরের পুরনো এই পূজা হচ্ছে তমলুকে ব্যবত্তারহাটের তাড়াগেড়্যা গ্রামে। প্রায় লক্ষাধিক মানুষের সমাগমে শুরু হয়েছে ভীম পূজা। মহাভারতের ভীমকে এখানে দেবতারূপে পুজো করা হয়।

ভীম ঠাকুরের মূর্তি বিশাল। লম্বায় প্রায় কুড়ি ফুট। গতকাল একাদশীর দিন থেকে পূজা শুরু হয়েছে। চলবে ১২ দিন। এই ভীম পূজাকে ঘিরে মেলা বসে। প্রতিদিন সন্ধ্যায় হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। যাত্রা, নাচ গান সব ধরনের অনুষ্ঠানে জমজমাট থাকে পূজা মন্ডপ। শুধু এলাকার নয় বহু দূর-দূরান্ত থেকে মানুষজন আসে এই ঠাকুরকে পূজা দিতে। নিজেদের মনস্কামনা পূরণের জন্য ঠাকুরের কাছে পুজো দেন। আবার সেই মনস্কামনা পূর্ণ হলে সেই টাকার মালা দিয়ে এবং বাতাসা দিয়ে ঠাকুরের কাছে নিবেদন করে পুণ্যার্থীরা মনস্কামনা পূরণ করার জন্য পুজো দেন।

মন্দিরের পাশের কুন্ডু থেকে স্নান করে দন্ডি কেটে এই মানত করেন পুণ্যার্থীরা। পুণ্যার্থীদের দেওয়া যে টাকার মালা ঠাকুরের গলায় আছে তার পরিমাণ প্রায় বছর ১০ লক্ষ টাকার মতো। এছাড়া সোনারূপো তো আছেই। ভীম ঠাকুরের কাছে পড়া প্রণামীর টাকা শুধু পুজোর বা মন্দিরের কাজে ব্যবহার হয় না। এলাকার উন্নয়নের কাজেও ব্যবহার হয়। এলাকার রাস্তাঘাট তৈরি, পানীয় জলের ব্যবস্থা ও বিদ্যালয়ের বাড়ি তৈরি ও বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজে এই প্রণামীর টাকা ব্যবহার করা হয় বলে জানিয়েছেন মেলা কমিটির সম্পাদক গোপালচন্দ্র গুড়িয়া। তিনি আরো জানিয়েছেন যে, গরীব দুঃস্থ মানুষদেরকেও পড়াশোনা বিয়ে ইত্যাদি কাজের জন্য সাহায্য দেওয়া হয় এই টাকা থেকে।

ধর্মীয় কুসংস্কারের বেড়াজাল কাটিয়ে পুজোর প্রণামী এই টাকা যে এলাকার উন্নয়ন ও বিভিন্ন সেবামূলক কাজে ব্যবহার হয় সেটাই এলাকার মানুষের কাছে বাড়তি পাওনা।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here