বেআইনি বিস্ফোরকের ব্যবসার অভিযোগে এনআইএ’র হাতে গ্রেফতার বীরভূমের যুবক মীর মহম্মদ নূরুজ্জামান

আশিস মণ্ডল, আমাদের ভারত, রামপুরহাট, ১ এপ্রিল: বেআইনি বিস্ফোরকের ব্যবসা করার অভিযোগে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এনআইএ-র হাতে গ্রেফতার হলো বীরভূমের মুরারইয়ের মীর মহম্মদ নূরুজ্জামান নামে এক যুবক। শুক্রবার তাকে কলকাতার বিকাশ ভবন থেকে গ্রেফতার করে এনআইএ। মীর মহম্মদ নূরুজ্জামানের বাড়ি বীরভূমের মুরারই থানার ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে ব্লক অফিস পাড়ায়। সে কলকাতার সল্টলেকে বিকাশভবনে একটি বেসরকারি কম্পিউটার সংস্থার হয়ে কাজ করত। এদিন মুরারইয়ের বাড়িতে গিয়ে দেখা মিলল না কারো। তালা বন্ধ রয়েছে বাড়ি।

২০০৭ সালে মুরারই কবি নজরুল কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় পাশ করে বি টেক পড়তে নূরুজ্জামান কলকাতায় চলে যান। সেই সময় থেকে তিনি কলকাতাতেই থাকতে শুরু করেন। মাঝে মধ্যে তিনি মুরারইয়ের বাড়িতে আসতেন। রামপুরহাটের ভাঁড়শালাপাড়ার এক ফার্টিলাইজার ব্যবসায়ীর মেয়ের সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়। এই ব্যবসায়ীর অ্যামোনিয়া নাইট্রেটের ব্যবসা ছিল। পরে সেই ব্যবসা মীর মহম্মদ নুরুজ্জামানের নামে লাইসেন্স হস্তান্তর করা হয়। এরপর থেকেই বেআইনি পথে বিস্ফোরক পাচার করতে শুরু করে বলে তদন্তকারী সংস্থা জানতে পারে। গত বছর মহম্মদ বাজারে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক উদ্ধার হয়। তারই তদন্ত শুরু করে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এনএইএ। তদন্তে নেমে নুরুজ্জামানের যোগসূত্র পায় এনএইএ।

তার বাবা মীর জুমলা হোসেন মুরারই কবি নজরুল কলেজের পদার্থ বিজ্ঞানের অধ্যাপক ছিলেন।
নুরুজ্জামানের গ্রেফতারে হতবাক তার বন্ধু কাঞ্চন হক। তিনি বলেন, “উচ্চ মাধ্যমিক পর্যন্ত এক সঙ্গে পড়েছি। কখনো সে খারাপ কাজের সঙ্গে যুক্ত হতে পারে ভাবতে পারিনি।”

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here