নরেন্দ্র মোদীর “মেকিং ইন্ডিয়া”র আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে কালিয়াগঞ্জের যুবক বিষ্ণুপদ তৈরী করলেন কম্বাইন হারভেস্টার

নরেন্দ্র মোদীর “মেকিং ইন্ডিয়া”র আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে কালিয়াগঞ্জের যুবক বিষ্ণুপদ তৈরী করলেন কম্বাইন হারভেস্টার

আমাদের ভারত, উত্তর দিনাজপুর, ৮ জুন:প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর “মেকিং ইন্ডিয়া”র ভাষণে অনুপ্রাণিত হয়ে কালিয়াগঞ্জ ব্লকের মালগাঁও পঞ্চায়েতের মুকুন্দপুর এলাকার পাহাড়গাঁও গ্রামের যুবক বিষ্ণুপদ রায় তৈরী করলেন কম্বাইন হারভেস্টার। এতে উপকৃত হবেন কৃষকরা।

দশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর “মেকিং ইন্ডিয়ার” ভাষণে অনুপ্রাণিত হয়ে নিজে কিছু করে দেখানোর ইচ্ছে জেগেছিল উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ ব্লকের মালগাঁও গ্রাম পঞ্চায়েতের মুকুন্দপুর এলাকার পাহাড়গাঁও গ্রামের যুবক বিষ্ণুপদ রায়ের। বাণিজ্য বিভাগে স্নাতক হয়ে পড়াশোনা শেষ করে কোনও সরকারি চাকরি না পেয়ে বিষ্ণু মাটির প্রতিমা তৈরির কাজ শুরু করেন। এরপর বিষ্ণুপদ প্যান্ডেলেরও ব্যবসা করেছেন। তাতেও তার তেমন কিছু আয় উন্নতি হয়নি। বছর দুয়েক আগে একদিন টিভিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মেকিং ইন্ডিয়া প্রসঙ্গ নিয়ে ভাষণ শুনে অনুপ্রাণিত হয়ে বিষ্ণুপদ নিজে কিছু করে দেখাতে চান এই ইচ্ছে প্রকাশ করেন। সেদিন থেকে শুরু হয় বিষ্ণুপদর কারিগরী নির্মাণের কাজ। ইন্টারনেটের মাধ্যমে একের পর এক বিভিন্ন মডেল দেখে এবং তার নির্মাণ প্রক্রিয়া শিখে সে ধান ও গম কাটার মেশিন সহ গাড়িগুলি বানানো শুরু করলেন। গ্রামের অপেক্ষাকৃত গরীব সাধারণ কৃষকদের কথা মাথায় রেখে র‍্যাপার ও মিনি হারভেস্টার ট্র‍্যাক্টরের সাথে লাগিয়ে কম্বাইন হারভেস্টার নিজের হাতে তৈরি করে একটি নজির সৃষ্টি করলেন গ্রামের যুবক বিষ্ণুপদ। প্রথমের দিকে ওই সব গাড়ি বানাতে গিয়ে চরম সমস্যার মুখে পড়তে হয়েছিল তাকে। ধান ও গম কাটার গাড়িটি ঠিক মত বানাতে না পারায় চরম সমস্যার মুখে পড়তে হয়েছিল। কিন্তু পরের দিকে বিষ্ণুপদকে আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। একের পর এক গাড়ি বানিয়ে চলছে ওই গ্রামের যুবক। ওই গাড়ি দিয়ে সহজেই কৃষককেরা জমির ধান ও গম কেটে নিতে পারবে কম সময়ের মধ্যে। তার হাতে বানানো র‍্যাপার, মিনি হারবাসটার ও ট্রাক্টরের সাথে লাগে কমবাইন হারবাসটার বহু জায়গায় চলে গিয়েছে। আজকাল যেসব মিনি হারভেস্টার ও কম্বাইন হারভেস্টার বাজারে পাওয়া যাচ্ছে সেই সব গাড়ির ঠিক মতো যন্ত্রপাতি পাওয়া যায় না। ফলে নষ্ট হয়ে পড়ে থাকে ওই সব গাড়িগুলি। কিন্তু বিষ্ণুপদ রায় নিজেই নিজের মতো যন্ত্রপাতি তৈরি করে ধান ও গম কাটার গাড়ি করেছে। সরকারি সাহায্য পেলে বিষ্ণুপদ কৃষিক্ষেত্রের প্রায় সব ধরণের মেশিন ও যন্ত্রপাতি তৈরি করতে পারবে বলে জানায় বিষ্ণুপদ। এছাড়াও ইঁট বানানোর মেশিন তৈরি করার সিদ্ধান্ত নেয় সে।

মালগাঁও গ্রাম পঞ্চায়েতের উপ-প্রধান গৌতম বর্মণ জানিয়েছেন, ওই যুবক নিজের বুদ্ধিতে ধান ও গম কাটার গাড়ি তৈরি করেছে। সেটা আমরা গিয়ে দেখে এসেছি। এই বিষয়টি কালিয়াগঞ্জের বিডিওকে জানানো হয়েছে। যাতে ওই যুবক কিছু সাহায্য পাই তার ব্যবস্থা করা হবে বলে জানান গৌতমবাবু।

Related Articles

2 Comments

  • My brother suggested I might like this website. He was once totally right.
    This publish actually made my day. You can not believe simply how so much time I had spent for this
    information! Thank you!

    • admin , June 19, 2019 @ 5:37 PM

      ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nine − one =