গোসাবায় বিজেপি কর্মীকে ধারালো অস্ত্রের কোপ, অভিযুক্ত তৃণমূল

আমাদের ভারত, গোসাবা, ১৭ নভেম্বর: বিজেপি কর্মীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানোর অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। আক্রান্ত বিজেপি কর্মীর নাম রাধাকান্ত মণ্ডল। রবিবার বিকেলে ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার গোসাবা থানার অন্তর্গত বালি ১ গ্রাম পঞ্চায়েতের মথুরাখন্ড গ্রামে। গুরুতর জখম অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে গোসাবা ব্লক গ্রামীণ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে।

অভিযোগ, এলাকায় বিজেপি করার জন্য বার বারে তাদের উপর আক্রমণ ও বিভিন্ন ভাবে হেনস্থা করেন এলাকার তৃণমূল কর্মী গৌরপদ মণ্ডল, সদানন্দ মণ্ডলরা। কিছুদিন আগেও রাধাকান্ত বাবুর উপর হামলা করেছিল অভিযুক্তরা। রবিবার বিকেলে নিজেদের পুকুরের জল পাম্প দিয়ে তুলে তা রাধাকান্ত বাবুর ধান জমিতে দিচ্ছিল অভিযুক্তরা। জমির ধান পাকতে শুরু করায় সেই জমিতে জল দিতে বারণ করেন রাধাকান্ত বাবু। অভিযোগ সেই সময় গৌরপদ ও সদানন্দ দুজনেই লাঠি ও দাঁ নিয়ে চরাও হয় রাধাকান্তের উপর। বেধড়ক মারধর করে তাকে। দাঁয়ের আঘাতে মাথায় গভীর ক্ষত হয় তার। তাকে বাঁচাতে গিয়ে স্থানীয় কয়েকজন বিজেপি কর্মী এগিয়ে এলে তাদেরও মারধর করা হয়। ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা ছড়ায়। স্থানীয়রা গুরুতর জখম অবস্থায় রাধাকান্তকে উদ্ধার করে গোসাবা ব্লক গ্রামীণ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যান।

এলাকার বিজেপি নেতা সৌমেন কামিলা বলেন, “গত পঞ্চায়েত ভোটের সময় থেকেই এই বালি দ্বীপে বিজেপি কর্মীদের উপর প্রতিনিয়ত হামলা, অত্যাচার করে যাচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস। আজও আমাদের এক কর্মীকে কোপানো হয়েছে সে বিজেপি দল করে বলে। পুলিশ প্রশাসনকে জানিয়েও কোনও লাভ হচ্ছে না। তৃণমূল হিংসার রাজনীতি করছে এলাকায়”। যদিও বিজেপির তোলা এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন এলাকার তৃণমূল নেতৃত্ব।

গোসাবা পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি কৈলাস বিশ্বাস বলেন, “স্থানীয় বিবাদকে কেন্দ্র করে ঘটনা ঘটেছে। এরমধ্যে কোনও রাজনীতি নেই। পুলিশ নিরপেক্ষভাবে তদন্ত করে দোষীদের গ্রেফতার করুক”।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here