বিজেপির গোষ্ঠী কোন্দল বারুইপুরে, আহত বেশ কয়েকজন

আমাদের ভারত, দক্ষিণ ২৪ পরগণা, ২৭ সেপ্টেম্বর:
দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায় তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল সর্বজনবিদিত। এবার তৃণমূলের পাশাপাশি গোষ্ঠী কোন্দলে জড়াল বিজেপিও। রবিবার বিকেলে বারুইপুরে বিজেপির জেলা কার্যালয়ে দুই গোষ্ঠীর কোন্দল প্রকাশ্যে চলে আসে। এদিন বিজেপির সর্ব ভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অনুপম হাজরার সামনেই বিক্ষোভে জড়িয়ে পড়েন দুই গোষ্ঠী। দু’পক্ষের হাতাহাতিতে বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মী আহত হন। আহতদেরকে উদ্ধার করে বারুইপুর মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে চিকিৎসার জন্য। ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় যথেষ্ট উত্তেজনা ছড়ায়।

রবিবার বিজেপির দলীয় কার্যালয়ে সাংগঠনিক বৈঠক ছিল। সেই বৈঠকে যোগ দিতে এসেছিলেন সদ্য বিজেপির কেন্দ্রীয় কমিটিতে যুক্ত হওয়া অনুপম হাজরা। এদিন বৈঠক শেষে অনুপম যখন বেড়িয়ে যাচ্ছিলেন তখন একদল বিজেপি কর্মী যারা এই বৈঠকে ডাক পাননি তারা অনুপমকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখান। তাঁর গাড়ি আটকে রাখেন দীর্ঘক্ষণ। ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা ছড়ায়। সেই সময় দলীয় কার্যালয় থেকে অন্য বিজেপি কর্মীরা বেড়িয়ে এসে বিক্ষুব্ধ কর্মীদের উপর চড়াও হয় বলে অভিযোগ। দু’পক্ষের হাতাহাতিতে বেশ কয়েকজন কর্মী আহত হন। ঘটনার খবর পেয়ে বারুইপুর থানার পুলিশ এসে পরিস্থিতি সামাল দেয়।

বিজেপির দক্ষিণ ২৪ পরগনা পূর্ব সাংগঠনিক জেলার সভাপতি হরিকৃষ্ণ দত্ত বলেন, “ কিছু দুষ্কৃতী তারা এদিন দলীয় কার্যালয়ে এসে হামলা চালায়। দলীয় কর্মীদের মারধর করে। এরা আসলে বিজেপি নয়, এরা দুষ্কৃতী।” হরিকৃষ্ণ অনুগামীদের দাবি, এই হামলার পিছনে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা বিজেপির সাধারণ সম্পাদক স্বরূপ দত্তের নেতৃত্বে হামলা চালানো হয়েছে।

যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করে স্বরূপ দত্ত দাবি করেন, “আমি বিজেপিতে নবাগত। এখানে আমার কোনও গোষ্ঠী নেই। মাত্র ২১ দিন আমি দলে যোগ দিয়েছি। যতদূর শুনেছি জেলা সভাপতি সমস্ত মন্ডল সভাপতিদের এই বৈঠকে ডাকেননি। নিজের কিছু কাছের লোককে নিয়ে আজ কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সাথে বৈঠক করেছেন। দিনের পর দিন বেশ কিছু মণ্ডল সভাপতি ও তাদের অনুগামী দলীয় কর্মীদের উপেক্ষা করছেন জেলা সভাপতি। এদিন কেন তারা বৈঠকে ডাক পাননি তা জানতেই দলীয় কার্যালয়ে আসেন।” এই দুই গোষ্ঠীর কোন্দলে এদিন যথেষ্ট উত্তেজনা ছড়ায় বারুইপুরে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here