কোচবিহারে গুলিবিদ্ধ বিজেপি কর্মী, অভিযুক্ত তৃণমূল, ঘটনায় রাজনীতি নেই দাবি পুলিশের

কোচবিহারে গুলিবিদ্ধ বিজেপি কর্মী, অভিযুক্ত তৃণমূল, ঘটনায় রাজনীতি নেই দাবি পুলিশের

আমাদের ভারত, কোচবিহার, ১৪ আগস্ট: কোচবিহার ২ নম্বর ব্লকের মধুপুরে গ্রাম পঞ্চায়েতের দিঘাপুল এলাকায় বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে এক বিজেপি কর্মীকে গুলি করে খুনের চেষ্ঠার অভিযোগ উঠল তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীর বিরুদ্ধে। অভিযোগ, গতকাল স্থানীয় বিজেপি কর্মী চন্দন দে’র বাড়িতে কীর্তন চলছিল , সেই সময় স্থানীয় যুবক ও এলাকায় সক্রিয় তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী বাপি রায় চন্দনকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এর পরে প্রায় ঘন্টা খানেক পর বাড়ির লোক জানতে পারেন, চন্দনকে পেটে গুলি করেছে বাপি এবং তাকে কোচবিহার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরে বুধবার সকালে তাকে কোচবিহারের একটি বেসরকারি হাসপাতালে আশঙ্কাজনক অস্থায় ভর্তি করা হয়।

আহত চন্দন দে’র বাবা মদন দে’ও বিজেপি করেন। এদিন তিনি অভিযোগ করেন, ষড়যত্র করেই তৃণমূল এই ঘটনা ঘটিয়েছে। তাঁর আরো অভিযোগ, অভিযুক্ত বাপি রায়ের বাবা অনিল রায়ই তাকে এই খবর দেন। বুধবার পুন্ডিবাড়ি থানায় বাপি রায়ের বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার অভিযোগ দায়ের করেছে চন্দন দে’র বাবা।

কোচবিহার  জেলা বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সুকুমার রায় অভিযোগ করেন,“কোচবিহার ২ নম্বর ব্লককে অশান্ত করতেই, পরিকল্পিত ভাবে এই ঘটনা ঘটিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস,”। তিনি আরো বলেন, দোষীদের অবিলম্বে গ্রেফতার না করা হলে আন্দোলনে নামা হবে বিজেপির পক্ষ থেকে।

অন্যদিকে অভিযোগ অস্বীকার করে বিজেপির গোষ্ঠী কোন্দলের দিকে দায় ঠেলে দিয়েছে তৃণমূল। স্থানীয় তৃণমূল কংগ্রেস নেতা ও জেলা পরিষদের সদস্য পরিমল বর্মন অভিযোগ করেন “ এটা বিজেপির গোষ্ঠী কোন্দল, যে ছেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়েছে সে খুব ভাল ছেলে , পরিকল্পনা করেই তৃণমূলের নাম করা হচ্ছে,”।

পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, আহত চন্দন দে’ও অভিযুক্ত বাপি রায়ের পরিচিত, এর পেছনে রাজনীতও নেই। তবে কি কারণে এমন ঘটল  তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।   

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five + 7 =