রেশন কার্ড নিয়ে তাঁর বিরুদ্ধে তোলা তৃণমূলের অভিযোগের জবাব দিলেন বিজেপি সাংসদ সুকান্ত মজুমদার

আমাদের ভারত, বালুরঘাট, ১৫ মে: রেশন কার্ড নিয়ে তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের জবাব দিলেন বিজেপি সাংসদ সুকান্ত মজুমদার। তৃণমূলের অভিযোগ, তিনি প্রকৃতপক্ষে বিপিএল তালিকাভুক্ত না হওয়া সত্ত্বেও সেই সুবিধা ভোগ করেছেন। অন্যদিকে বিজেপির বালুরঘাটের সংসদের অভিযোগ, খাদ্য দপ্তরের ভুলের জন্য এমনটা হয়েছিল। তারপর বারবার খাদ্যদপ্তরকে বলা সত্বেও তারা সেই রেশন কার্ড পাল্টে দেয়নি।

সম্প্রতি বালুরঘাটের বিজেপি সাংসদের বিরুদ্ধে তৃণমূল রেশন কার্ড নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ তুলেছে। তাদের অভিযোগ, তিনি বিপিএল তালিকাভুক্ত না হওয়া সত্বেও বিপিএল এর সমতুল্য এস পি এইচ এইচ কার্ড ব্যবহার করেছেন। এই নিয়ে শোরগোল শুরু হয়েছে জেলায়। কিন্তু তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সুকান্ত মজুমদার। তিনি এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, এটা খাদ্য দপ্তরের ভুলের জন্য হয়েছিল। তিনি বলেন, ২০১৬ সালে যখন ডিজিটাল রেশন কার্ড চালু হয়, তখন তাঁদের এই কার্ড দেওয়া হয়েছিল। তার আগে তাদের এ পি এল কার্ড ছিল। কিন্তু ডিজিটাল রেশন কার্ড যখন তাদের হাতে দেওয়া হয় সেটা ছিল এস পি এইচ এইচ। তিনি সেই সময় কর্মসূত্রে বাইরে ছিলেন। তাঁর মা কয়েকবার খাদ্য দপ্তরে গিয়ে এই কার্ড পাল্টে দেওয়ার আবেদন করেছেন, কিন্তু কাজ হয়নি।

ছবি: নতুন রেশন কার্ড়ের জন্য করা আবেদন।

রেশন না তুললে কার্ড বাতিল হয়ে যেতে পারে তাই সুকান্তবাবুর মা সেই রেশন কার্ড পাড়ার এক কল মিস্ত্রিকে দিয়ে দেন। সেই কল মিস্ত্রিই এতদিন তা দিয়ে রেশন তুলতেন। সুকান্তবাবু এরপরে রাজনীতিতে যোগদান করেন। তারপর থেকেই নানা কাজে ব্যস্ত ছিলেন, তাই এতদিন বিষয়টি তাঁর নজরে আসেনি বলে জানিয়েছেন। বর্তমানে লকডাউনের কারণে বাড়িতে আছেন এবং তখনই বিষয়টি নজরে আসায় গত ৫ মে তিনি অনলাইনে এপিএল কার্ডের জন্য আবেদন করেন। সুকান্তবাবু বলেন, তাঁর এই আবেদনের পর তৃণমূল কংগ্রেস বিষয়টি জানতে পেরে ৫দিন পর তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে। তিনি বলেন, আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ তোলা হয়েছে তা ঠিক নয়। এটা পুরোপুরি খাদ্য দপ্তরের ভুলে হয়েছে। কারন, আমরা এস পি এইচ এইচ কার্ডের জন্য আবেদন করিনি। এই কার্ড দেওয়া হয় আবেদনের ভিত্তিতে এবং বাড়িতে গিয়ে পরিবারের অবস্থা খতিয়ে দেখার পরেই এই কার্ড দেওয়া হয়। তাঁর প্রশ্ন, “আবেদন না করা সত্বেও কী করে এটা হল? আসলে ইচ্ছাকৃত ভুল করে সেই দায় এখন আমার ওপর চাপানো হচ্ছে।”

ছবি: পুরনো এপিএল রেশন কার্ড।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here