বিরোধীদের তোপ মোদীর! পরিবারতান্ত্রিক দল কৃষকের জীবন দুর্বিষহ করে রাজনীতি করে, বিজেপি সমাধানের রাজনীতিতে বিশ্বাসী

আমাদের ভারত, ১৯ নভেম্বর: গুরু নানকের জন্মদিনে সকলকে চমকে দিয়ে কৃষি আইন প্রত্যাহারের মতো এক সাহসী ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী। তারপর থেকেই বিরোধী শিবিরের অনেকেই কেন্দ্র সরকারকে আক্রমন করতে শুরু করে। এবার বিরোধীদের আক্রমণের জবাব দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কোনও বিরোধী দলের নাম উল্লেখ না করলেও তিনি বলেন, “কিছু রাজনৈতিক দলের লক্ষ্য থাকে কীভাবে কৃষকদের জীবনকে দুর্বিষহ করে রাখা যায়।” তাঁর দাবি, বিজেপি সমাধানের রাজনীতি করে সমস্যার নয়।

আজ উত্তরপ্রদেশের মাহোবার এক জনসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পরিবারতান্ত্রিক দলগুলি কৃষকদের দাবি দাওয়া বা চাহিদা কখনোই পূরণ করতে চায় না। এক্ষেত্রে তাঁর স্পষ্ট নিশানায় ছিল কংগ্রেস, মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। মোদীর বক্তব্য, পরিবারতন্ত্রের দলগুলি সমস্যা রাজনীতি করে আর বিজেপি সমাধানের রাজনীতিতে বিশ্বাসী।

প্রধানমন্ত্রী কথায়, “পরিবারতান্ত্রিক দল দ্বারা যে সরকার চলে তারা সবসময় কৃষকদের সমস্যার মধ্যে রেখে দিতে চায়। তারা কৃষকদের নামে শুধু ঘোষণা করতেই অভ্যস্ত কিন্তু সে ঘোষণার সিকিভাগও বাস্তবায়ন করে না। কিছুই কৃষকদের হাতে এসে পৌঁছায় না। আমরা প্রধানমন্ত্রী কিষান সম্মান নিধির মাধ্যমে কৃষকদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে সরাসরি টাকা পাঠানোর ব্যবস্থা করেছি। এখনও পর্যন্ত ১ কোটি ৬২ লাখ টাকা কৃষকদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে পাঠানো হয়েছে।”

আজ উত্তরপ্রদেশের মাহোবা জেলা থেকে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধন করেন নরেন্দ্র মোদী। এই প্রকল্পগুলিতে সব মিলিয়ে ৩২৫০ কোটি টাকা ব্যয় করেছে বিজেপি সরকার।

সকালে জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেওয়ার সময় মোদী বলেন, “দেশের অধিকাংশ মানুষের কাছেই এই তথ্য নেই যে, আমাদের দেশের ১০০ জন কৃষকের মধ্যে ৮০ জন ছোট কৃষক। যাদের কাছে দুই হেক্টর জমি রয়েছে, সেই ছোট কৃষকদের সংখ্যা ১০ কোটিরও বেশি। আমরা কৃষকদের উন্নয়নে কাজ করি। সয়েল হেলথ কার্ড, ইউরিয়া, উন্নত মানের বীজ প্রদান করে কৃষিকাজে যথাসাধ্য সাহায্য করেছি। ফসল বীমা যোজনা অধীনে প্রচুর কৃষকদের আনা হয়েছে। এর ফলে গত চার বছরে এক লক্ষ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ পেয়েছে কৃষকরা।”

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here