বিধায়ক দেবেন্দ্র নাথ রায়ের দেহ গ্রামে ঢুকতেই কান্নায় ভেঙে পড়লেন পরিবারের সদস্য থেকে গোটা গ্রামে মানুষ, উপচে পড়ল ভিড়

স্বরূপ দত্ত, আমাদের ভারত, উত্তর দিনাজপুর, ১৪ জুলাই: স্বজন হারানো বেদনায় কেঁদে উঠল গোটা বালিয়া গ্রাম। গ্রামের এমন কোনও মানুষ আজ ছিলেন না যার চোখে জল নেই। সকলের প্রিয় মানুষ এলাকার বিধায়ক দেবেন্দ্র নাথ রায়ের মরদেহ গ্রামে ঢুকতেই কান্নায় ভেঙে পড়লেন পরিবারের সদস্য থেকে গ্রামের সকল মানুষ। শেষবারের জন্য একবার প্রিয় মানুষটিকে দেখার জন্য বালিয়া গ্রামের রায় বাড়িতে ভিড় উপচে পড়ল।

বামফ্রন্ট আমল থেকে গ্রামপঞ্চায়েতের সদস্য থেকে বিন্দোল গ্রামপঞ্চায়েতের প্রধান, হেমতাবাদ পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য সবই হয়েছেন সিপিএমের হয়ে। বালিয়া গ্রামের এই সরল সাধাসিধে মানুষ দেবেন্দ্র নাথ রায় ২০১৬ সালে সিপিএমের টিকিটে জয়ী হয়ে হেমতাবাদ বিধানসভার বিধায়ক হন। গ্রামের মাটির মানুষ দেবেন্দ্র বাবু ছিলেন সকলের প্রিয়। না ডাকতেই সকলের আপদে বিপদে অভিভাবকের মতো ঝাঁপিয়ে পড়তেন। বছর খানেক আগে সিপিএম দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। রাজনৈতিক দলমত বদল করলেও মানুষ দেবেন্দ্র নাথ রায় ছিলেন সব রাজনৈতিক দলের কর্মীদের কাছে প্রিয়। সেই মানুষটির যে এভাবে মৃত্যু ঘটবে কল্পনাও করতে পারেননি কেউ। তাঁর মৃত্যু গ্রামের প্রতিটি পরিবারের কোনও সদস্যের মৃত্যুর শামিল বলে মনে করেন গ্রামের বাসিন্দারা। শোকে বিহ্বল হয়ে পড়েছে হেমতাবাদের গোটা বালিয়া গ্রাম ও গ্রামের আবাল বৃদ্ধ বনিতা।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here