ব্রিটিশদের তৈরি বার্ডলি বার্ড ডিসপেনসারী বিল্ডিং ভেঙ্গে ঘাটালে ভবঘুরেদের জন্য আবাস তৈরীর উদ্যোগ

কুমারেশ রায়, আমাদের ভারত, ১২ অক্টোবর:
এমন অনেক মানুষ আছেন যাদের রাতে মাথা গোঁজার আস্তানা নেই। আস্তানা তো দূরের কথা এরা গৃহহীন।রাস্তাঘাটে, এখানে ওখানে শুয়ে এরা রাত কাটান অর্থাৎ ভবঘুরে।

বিভিন্ন শহরে ভবঘুরেদের থাকার আবাস থাকলেও ঘাটাল শহরে ভবঘুরে আবাস নেই। ঘাটালে ভবঘুরেদের থাকার জন্য আবাস তৈরীর উদ্যোগ নেওয়া শুরু হয়েছে। পুরসভার উদ্যোগে রবিবার থেকে এই উদ্যোগ শুরু হয়েছে।

ঘাটাল টাউন হলের পাশে ব্রিটিশ আমলে তৈরি একটি ভবন ভেঙ্গে ভবঘুরে আবাস তৈরি হবে বলে জানিয়েছেন ঘাটাল পুরসভার প্রশাসক বিভাস ঘোষ। ওই ভবনটি ব্রিটিশ আমলে ১৯১৪ সালে তৈরি হয়েছিল। তৎকালীন সময়ে ওই ভবনে একটি ডিসপেনসারি ছিল। যার নাম ‘ব্রাডলি বার্ট ডিসপেনসারি। ‘পরবর্তীকালে ওই ভবনটিতে একটি হাসপাতাল চালু হয়। বাম আমলে ওই ভবনে একটি স্কুল চলত। কিন্তু স্কুলটি স্বীকৃতি লাভ না করায় স্কুলের পঠন পাঠন বন্ধ হয়ে যায়।

এখন ওই ভবনে একটি প্রাইমারি স্কুল চালু আছে। একটি পুরনো ঐতিহ্যবাহী ভবন ভেঙ্গে ভবঘুরে আবাস তৈরি করার পরিকল্পনায় ঘাটালের কিছু মানুষ প্রশ্ন তুলেছেন, ওই ভবনটি না ভেঙ্গেও অন্য জায়গায় ভবঘুরে আবাস তৈরি করা যেত।

এই বিষয়ে ঘাটাল পুরসভার প্রশাসক বিভাস ঘোষ বলেন, আরবান ডেভেলপমেন্ট অথরিটির উদ্যোগে ঘাটাল পৌরসভা ভবঘুরের আবাস তৈরি করবে। ওই ভবনে এখন যে প্রাইমারি স্কুলটি চলছে সেই স্কুলের ছাত্রছাত্রীরা কিন্তু ঝুঁকি নিয়ে ক্লাস করে। কারণ ভবনটির কোনও অংশ খসে পড়তে পারে। ওই ভবনটি সংস্কারের প্রয়োজন ছিল। ভবঘুরে আবাস তৈরীর জন্য চার থেকে পাঁচ কাঠা জায়গা প্রয়োজন।

এই বিষয়ে কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা ও প্রাক্তন চেয়ারম্যান জগন্নাথ গোস্বামী বলেন, এমন অনেক মানুষ আছে যাঁরা রাতে থাকার জায়গা পায় না, তাদের জন্য ভবঘুরে আবাস প্রয়োজন। আর পুরনো জিনিস ভেঙ্গে নতুন কিছু হবে না এটা আধুনিক মনষ্কতা নয়।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here