পাচারকারী সন্দেহে নবম শ্রেণির দুই ছাত্রকে বেধড়ক মারধরের অভিযোগ বিএসএফের বিরুদ্ধে

আমাদের ভারত, উত্তর ২৪ পরগনা, ১৬ অক্টোবর: সীমান্তে পাচারকারী সন্দেহে নবম শ্রেণির দুই ছাত্রকে মারধর করার অভিযোগ উঠল বিএসএফের বিরুদ্ধে। ওই ২ ছাত্রকে বাঁচাতে গিয়ে ছাত্রদের কাকিমাকেও মার খেতে হয় বলে অভিযোগ। উত্তর ২৪ পরগনার বসিরহাট মহাকুমার স্বরূপনগর থানার ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের নিত্যানন্দ কাঠি গ্রামের এই ঘটনায় সকাল থেকে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

বছর ১৩ এর নবম শ্রেণির দুই ছাত্র ইমরান মন্ডল, সালমান মন্ডল ঘরের ভেতরে গেম খেলছিল বলে পরিবারের দাবি। সেই সময় বসিরহাটের স্বরূপ নগর সীমান্তে ১১২ নম্বর ব্যাটালিয়নের ই, কোম্পানির সীমান্তরক্ষী বাহিনী নিত্যানন্দ কাঠি গ্রামে টহল দিচ্ছিল। হঠাৎই এক পাচারকারীকে দেখে তাড়া করে টহলরত বিএসএফ জওয়ানরা। ওই পাচারকারী এরপর লুকিয়ে পড়ে। সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সন্দেহ হয় যে ঘরে নবম শ্রেণির দুই ছাত্র মোবাইলে গেম খেলছিল, সেই ঘরেই ওই পাচারকারীরা লুকিয়েছে। বিএসএফ জওয়ানরা এরপর ঘরের মধ্যে ঢুকে দেখে দুই ছাত্র মোবাইলে গেম খেলছে। পাচারকারী সন্দেহে তাদেরকে ঘর থেকে বাইরে বের করে এনে বেধড়ক মারধর করে বলে অভিযোগ। ওই ছাত্রদের সম্পর্কে কাকিমা জেসমিন বিবি এই ঘটনার প্রতিবাদ করলে তাঁকে ও মারধর করে জওয়ানরা। এই ঘটনার জেরে গ্রামে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। নিত্যানন্দ কাটি গ্রামের মানুষ এই ঘটনায় বিএসএফের বিরুদ্ধে ক্ষোভে ফুঁসছে। এদের বিরুদ্ধে উপযুক্ত তদন্ত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে। ক্ষোভ উগরে দিচ্ছে গ্রামের মানুষ, ওই জ‌ওয়ানের বিরুদ্ধে স্বরূপনগর থানায় আক্রান্ত ছাত্রের বাবা মনিরুল মন্ডল অভিযোগ জানিয়েছে। এর পেছনে অন্য কোনো কারণ আছে কি না, সেটাও খতিয়ে দেখছে স্বরূপনগর থানার পুলিশ ।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here