দ্রুত কার্যকর হোক সিএএ, মোদীর কাছে দাবি জানাল বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্ব

আমাদের ভারত, ৩ ডিসেম্বর:রাজ্যে নাগরিকত্ব আইন বা সিএএ বাস্তবায়নের দাবি নিয়ে এবার দিল্লিতে দরবার করলেন বঙ্গ বিজেপির নেতৃত্ব। শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে দেখা করে দ্রুত সিএএ পশ্চিমবঙ্গ সহ সারা দেশে লাগু করার দাবি জানালেন রাজ্যের বিজেপি সাংসদরা। সিএএ ছাড়াও বিজেপির প্রতিনিধি দল রাজ্যের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করেন।

ভোট-পরবর্তী হিংসা, এস এস সি গ্রুপ ডি নিয়োগে বেনিয়ম থেকে শুরু করে সিএএ কার্যকর করার মতো একাধিক বিষয় নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে দরবার করেন বিজেপি সাংসদরা। রাজ্য বিজেপি সভাপতি বলেন, নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন বা সিএএ দ্রুত বাস্তবায়নের কথা তাঁরা প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েছেন। এক বছরেরও বেশি সময় আগে সিএএ আইন হয়েছে কিন্তু এই সংক্রান্ত নিয়ম তৈরি করা সম্ভব হয়নি এখনও পর্যন্ত তাই সেই কাজ শেষ করে আইন দ্রুত লাগু করার আবেদন জানিয়েছেন তারা

সিএএ ছাড়াও ভোট-পরবর্তী সন্ত্রাস প্রসঙ্গেও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বিজেপির প্রতিনিধি দল কথা বলেছে আজ। এই প্রসঙ্গে সুকান্ত মজুমদার বলেন, “প্রধানমন্ত্রী সবটাই জানেন তবুও আমাদের মুখ থেকে রাজ্যে একভাবে চলা সন্ত্রাসের কথা তিনি শুনলেন। কিভাবে বিজেপি কর্মীরা আক্রান্ত হচ্ছেন সেটা আমরা জানিয়েছি তাঁকে। একইসঙ্গে সন্ত্রাস নিয়ে আদালতের নির্দেশে সিবিআই তদন্ত করছে তা যাতে ত্বরান্বিত হয় তারাও আর্জি জানিয়েছি। এছাড়াও রাজ্যে বিভিন্ন চাকরিতে নিয়োগের যে দুর্নীতি চলছে এবং আদালতের সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে তাও যাতে সঠিকভাবে হয় তার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে আর্জি জানিয়েছি।

একইসঙ্গে সুকান্তবাবু জানান, “পশ্চিমবঙ্গে ১০০ দিনের কাজ সহ বিভিন্ন কেন্দ্রীয় প্রকল্প কাজের ক্ষেত্রে যেভাবে রাজনৈতিক রঙকে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে তা আমরা প্রধানমন্ত্রী কে জানিয়েছি।” প্রধানমন্ত্রীকে রাজ্যে আসার আমন্ত্রণও জানিয়েছেন বিজেপি সাংসদরা। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “স্বাধীনতার ৭৫ বছর উপলক্ষে অমৃত মহোৎসব পালিত হচ্ছে দেশে। একই সঙ্গে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুকে নিয়েও একাধিক কর্মসূচি নিয়েছে সরকার। এই বিষয়গুলো নিয়ে বাংলা ভাষায় একটি পুস্তিকা যাতে কেন্দ্র প্রকাশ করে এবং সেটা প্রধানমন্ত্রী যাতে কলকাতায় এসে প্রকাশ করেন সে ব্যাপারে কথা হয়েছে।”

সুকান্ত মজুমদার জানান, “বঙ্গ বিজেপির দলীয় কর্মীদের মনোবল বাড়াতে প্রধানমন্ত্রীকে পশ্চিমবঙ্গ আসার অনুরোধ জানিয়েছেন তাঁরা। কয়েক ঘণ্টার জন্য এই সফরে আসতে রাজি হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।”

অন্যদিকে বিশ্ববঙ্গ বানিজ্য সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর আমন্ত্রণ গ্রহণ করেছেন। সে প্রসঙ্গে সুকান্ত মজুমদার বলেন, “আমরা খুশি যে মুখ্যমন্ত্রী অন্তত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে প্রধানমন্ত্রী বলে স্বীকার করে নিয়েছেন। নিজে প্রধানমন্ত্রী হবার স্বপ্ন দেখলেও তিনি বুঝেছেন এখন বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আমরা মনে করি এটা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরাজয়। মনে আগে তো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রীকে কোমরে দড়ি দিয়ে ঘোরানো কথা বলতেন। এখন তাঁকে আমন্ত্রণ জানাচ্ছেন।”

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here