বাজি, বাজনা, ভিড় ছাড়া ছট পালনের নজির সৃষ্টি কলকাতার

রাজেন রায়, কলকাতা, ২১ নভেম্বর: বাজি ছাড়া, বাজনা ছাড়া, ভিড় ছাড়া এ যেন এক নতুন ছট। করোনা আবহে এবারের ছট পূজা কেমন হবে, তা নিয়ে চিন্তা ছিল রাজ্য প্রশাসনের।
কিন্তু এভাবে এক অন্য ছটের সাক্ষী হয়ে পুলিশ প্রশাসন মনে করছে, বাস্তবিকই মানুষের মধ্যে নীতিবোধ জাগ্রত হয়েছে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ভয়ে হোক অথবা যে কোন কারণে, সামান্য কিছু মানুষ ছাড়া বেশিরভাগ মানুষই এ নিয়ে সমস্যার সৃষ্টি করেননি। কৃত্রিম জলাশয় হোক বা বাড়ির ছাদ, ভক্তিভরে ছট পালন করেছেন।

এমনিতেই শুক্রবার বিকেলে এবং শনিবারের সকাল ছিল মেঘলা। এমনকি শনিবার ভোররাত থেকে শুরু হয় বৃষ্টি। মেঘে ঢাকা থাকার কারণে দেখা যায়নি সূর্যদেবকে। তবে তার জন্য ভক্তিতে ভাটা পড়েনি ছট পুণ্যার্থীদের।

হাইকোর্টের রায়ের পরেও পরিবেশবিদ থেকে আমজনতার একতা বড় অংশই সন্দিহান ছিল যে ছটপুজো আদালতের রায় ও কোভিড বিধি মেনে পালিত হবে কিনা তা নিয়ে। প্রশাসন ও পুলিশের কড়াকড়ি সেই সঙ্গে সচেতনতার জন্য রাজ্য প্রশাসনের তরফে লাগাতার প্রচার এবারের ছট পুজোকে ব্যাতিক্রমী ভাবেই পার করেছে। শুক্রবার বিকালে তো বটেই, শনিবার ভোরেও সেভাবে বিধি ভঙ্গনের ছবি কোথাও সেভাবে ধরা পড়েনি। রবীন্দ্র সরোবর ও সুভাষ সরোবরে যেমন কোনও ছট পুজো হয়নি তেমনি বাজেনি তীব্রস্বরে ডিজে, ব্যান্ডপার্টি, তাসাপার্টি। সেভাবে শোনা যায়নি বাজির শব্দও। রাস্তায় চোখে পড়েনি হাজার হাজার মানুষের স্রোত। গঙ্গার ঘাটগুলিতেও সেভাবে ভিড় চোখে পড়েনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here