রাতারাতি ভারতের ডিজিটাল স্ট্রাইক, গভীর উদ্বেগের বার্তা এলো চিনা বিদেশ মন্ত্রক থেকে

আমাদের ভারত, ৩০ জুন: লাদাখ সীমান্তে ১৫ জুনের ঘটনার কড়া জবাব দিয়েছে ভারতীয় সেনা বলে জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। এবার ঠিক তার ১৫ দিনের মাথায় চিনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল স্ট্রাইক করল ভারত। হ্যাঁ ঠিক সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের মতই রাতারাতি ৫৯টি চিনা অ্যাপকে নিষিদ্ধ করে দিল ভারত সরকার। এত বড় ডিজিটাল স্ট্রাইক সম্ভবত এই প্রথম। আর এর ফলে হাজার হাজার কোটি টাকার ব্যবসা একদিনে বন্ধ হয়ে যাওয়ায় স্বভাবতই কপালে ভাঁজ পড়েছে চিনা প্রশাসনের।

চিনের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র ঝাও লিয়াং এই অ্যাপ নিষিদ্ধকরণ নিয়ে নিজের বক্তব্য রেখেছেন। তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, চিন এই বিষয়ে অত্যন্ত উদ্বিগ্ন। সামগ্রিক বিষয়টির পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে দেখা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। তিনি বলেন,”আমরা সমস্ত চিনা সংস্থাকে আন্তর্জাতিক নিয়মকানুন মেনে চলার পরামর্শ দিয়ে থাকি। ভারত সরকারের পূর্ণ অধিকার আছে যেকোনো বিদেশি সংস্থাকে আইন বিরুদ্ধ কাজ করতে বাধা দেওয়ার।”

রাতারাতি চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ হয়েছে। ফলে বিপদে পড়েছে টিকটক ক্যামস্ক্যানার, শেয়ার ইটের মত বড় বড় সংস্থা। ঘোষণার পরই টিকটক সরকারি স্তরে যোগাযোগ করে জানিয়েছে ভারতের আইন মেনেই তারা কাজ করবেন। ব্যবহারকারীর গোপনীয়তা এবং সার্বভৌমত্বকে তারা গুরুত্ব দেবেন যথেষ্ট।

চিন-ভারত উত্তেজনার পরিস্থিতির মধ্যে সোমবারের নেওয়া তাৎপর্যপূর্ণ এই সিদ্ধান্ত ঘোষণা করে কেন্দ্র স্পষ্ট জানিয়েছে ৬৯(ক) ধারায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষা ও তথ্যের নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত করতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রকের দেওয়া বিবৃতিতে বলা হয়েছে,”এই পদক্ষেপ ভারতীয় মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের সুরক্ষিত করবে। দেশের সাইবার স্পেসের সার্বভৌমত্ব বজায় রাখতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here