কাজ হয়েছে স্নায়ু লড়াইয়ে ! গালওয়ানে সাফল্য ভারতের, ১ কিমির বেশি পিছোলো চিনা সেনা

আমাদের ভারত, ৬ জুলাই: শেষ পর্যন্ত পূর্ব লাদাখের গালওয়ান উপত্যকা থেকে বেশ কিছুটা পিছিয়ে গেল চিনের সেনা। উত্তেজনা কমাতে বাফার জোন তৈরীর উদ্দেশ্যে এই পদক্ষেপ বলে সরকারি সূত্রে জানানো হয়েছে। আপাতত গালওয়ান, গোগরা, হট স্প্রিং এরিয়াতে এই প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। কিন্তু পূর্ব লাদাখের প্যাংগং লেকের উত্তরে ফিঙ্গার এরিয়ায় পরিস্থিতির কোনো পরিবর্তন হয়নি। তবে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, ভারতের এইভাবে চোখে চোখ রেখে কথা বলা কাজ দিয়েছে। বানিজ্যিক স্তরে একের পর চাপ, কূটনৈতিক স্তরে কড়া বার্তা, আর সীমান্তে প্রত্যাঘাতের চরম প্রস্তুতি চিনা সেনাকে পিছিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য করেছে।

সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর গালওয়ানে প্রায় এক থেকে দুই কিলোমিটার পিছিয়েছে চিনা সেনা। তবে গালওয়ান নদীর তীরে এখনো পিপলস লিবারেশন আর্মির সাঁজোয়া গাড়ি রয়েছে। তারা ভারতীয় সেনার পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছে।

১৫ জুন গালওয়ানের পেট্রল পয়েন্ট১৪-র কাছে চিনা সেনার সঙ্গে সংঘর্ষে ২০ জন ভারতীয় জওয়ানের মৃত্যু হয়েছিল। চিনেরও ৪৫ জন সেনা জওয়ানের হতাহতের খবর পাওয়া যায়। সোমবার জানা গেছে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় অন্দরে ভারতীয় ভূখন্ডে অবস্থিত ওই এলাকা থেকে প্রায় দু’কিলোমিটার পিছনের সরেছে চিনা সেনা।

গালওয়ানে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের পর ২২ এবং ৩০ জুন দুই পক্ষের সেনার কোর কমান্ডার স্তরে বৈঠক হয়। সেই বৈঠকের পর ৫ দিন পর পিছিয়ে যাবার পদক্ষেপ নিল চিনা সেনা।

তবে মোদীর লাদাখ সফলের ৪৮ ঘন্টার মধ্যে চিনা সেনার এই পদক্ষেপ। কারণ লাদাখ থেকে মোদীর হুঙ্কার ও সফরের পর একাধিক কূটনৈতিক স্তরে আলোচনা হয়েছে উভয় পক্ষের মধ্যে। সেখানে কড়া বার্তা দেওয়া হয়েছে ভারতের তরফে। তারপরই এই পদক্ষেপ বলে মনে করা হচ্ছে।

জানা গেছে রবিবার থেকে চিনের সেনা পিছিয়ে যেতে শুরু করেছে। তবে গালওয়ান গোগরা, হট স্প্রিং এলাকায় পিছোনোর প্রক্রিয়া শুরু হলেও প্যাংগং লেকের উত্তরে চিনা সেনা এখনও সরেনি। আদৌ তারা সরবে কিনা তা নিয়ে সন্দিহান অনেকেই। কারণ ফিঙ্গার এরিয়ার ৪ থেকে ৮ এর মধ্যে একাধিক স্থানে রাস্তা, কালভার্ট, কংক্রিটের বাঙ্কার পর্যন্ত তৈরি করে স্থায়ী ঘাঁটি বানিয়ে ফেলেছে চিন। আর সেই কারণেই সংলগ্ন এলাকায় টহলদারিও করতে পারছেন না ভারতীয় সেনা।

উত্তর লাদাখের দৌলতবেগ ওল্ডি বায়ু সেনা ঘাঁটি সন্নিকটস্থ দেপাসাং এলাকাতেও এলএসসি পেরিয়ে ঢুকে আসা চিনা ফৌজ এখনো পিছু হটেননি বলেও জাতীয় সংবাদ মাধ্যম সূত্রে খবর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here