দক্ষিণ দিনাজপুরের উন্নয়নে ব্যর্থ আলিপুরদুয়ারের বিতর্কিত জেলাশাসক, রুষ্ট মমতার ধমক নিখিল নির্মলকে

11

আমাদের ভারত, বালুরঘাট, ১৯ নভেম্বর: আলিপুরদুয়ারের বিতর্কিত জেলা শাসককে দক্ষিণ দিনাজপুরের দায়িত্বে আনা হলেও জনগণের উন্নয়নে ব্যর্থ নিখিল নির্মল। প্রশাসনিক বৈঠকে জেলাশাসকের কাজ নিয়ে রুষ্ট রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। মঙ্গলবার দক্ষিণ দিনাজপুরের গঙ্গারামপুর স্টেডিয়াম মাঠে অনুষ্ঠিত প্রশাসনিক বৈঠকে জেলা শাসককে একাধিকবার ধমক দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সকলকে নিয়ে কাজ করতে না পারলে দায়িত্ব ছেড়ে দেবার কথাও জানান তিনি। এদিন রাজ্যের শীর্ষ প্রশাসনিক আধিকারিকদের উপস্থিতিতে নিজের পিঠ বাঁচাতে জেলার উন্নয়ন নিয়ে জেলা পরিষদের সভাধিপতির উপর দোষ চাপানোর চেষ্টা করলেও আমল দেননি তাতে মুখ্যমন্ত্রী। উল্টে তিনি বলেন, আপনি কাজ না করলে মানুষ আমাকে ধরবে। কেন উন্নয়নের কাজে এত অনীহা তাও জেলা শাসক নিখিল নির্মলের কাছে জানতে চান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন গঙ্গারামপুর স্টেডিয়ামে মুখ্যমন্ত্রী হেলিকপ্টার অবতরণ করে বেলা দেড়টা নাগাদ। যারপর মুখ্যমন্ত্রী স্টেডিয়ামের অস্থায়ী মঞ্চে প্রশাসনিক বৈঠকে বসেন। অনুষ্ঠানের শুরুতেই কাশ্মীর ফেরত জেলার ১১৫ জন শ্রমিকদের হাতে ৫০ হাজার টাকার চেক তুলে দেন মুখ্যমন্ত্রী। এরপর জেলা শাসকের কাছে জেলার বিভিন্ন প্রকল্পের পরিস্থতি জানতে চেয়ে খানিকটা উত্তেজিত হয়ে ওঠেন মমতা। প্রশাসনিক সভায় জেলার কাজকর্মের খতিয়ান চেয়ে পরিসংখ্যান তুলে ধরতে বলেন মুখ্য সচিব রাজীব সিনহা। জেলায় উন্নয়ন কাজের অগ্রগতি নিয়ে জেলা শাসককের কৈফিয়ত তলব করেন মুখ্যমন্ত্রী। সকলকে নিয়ে আলোচনায় বসা সহ জেলা পরিষদ ও পঞ্চায়েতগুলিকে কোনও কাজ কর্মের খবর না জানানো নিয়েও জেলা শাসককে ধমক দেন তিনি।

এদিনের বৈঠকে জেলা পরিষদের সভাধিপতি অনুপস্থিত থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী। জেলাশাসককে নির্দেশ দেন জেলা পরিষদের কাজকর্ম দেখবার বিষয়ে। পাশাপাশি আইনি ব্যাপারে কাজকর্ম পরিদর্শন করতে নির্দেশ দেওয়া হয় আইনজীবী ও প্রাক্তন বিধায়ক শঙ্কর চক্রবর্তীকে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here