করোনা হটস্পটে জমায়েত রুখতে কলকাতার রাস্তায় শুরু ‘কমব্যাট ফোর্স’-এর দাবাংগিরি

সৌভিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা, ১৮ এপ্রিল: কথাতেই আছে মানুষ শক্তের ভক্ত নরমের যম।অনুরোধ-উপরোধে কাজ না হলে অন্তিম ওষুধ প্রয়োগ করতেই হয়। প্রথমে লাঠিচার্জ নিয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে অতিসক্রিয়তার অভিযোগ করেছিলেন অনেকেই। পুলিশ কিছুদিনের জন্য প্যাভিলিয়নে ফিরতেই কমার বদলে উলটে বেড়ে গিয়েছে করোনা সংক্রমণ। রেড জোন ঘোষিত হয়েছে হাওড়া, উত্তর কলকাতা, মালদা, মুর্শিদাবাদ হুগলী, পূর্ব মেদিনীপুরের মতো একাধিক জায়গা।

তাই এবার শহরের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নামানো হল ‘কমব্যাট ফোর্স।’ আর রাস্তায় নেমেই ফের রণংদেহী মূর্তিতে ফিরল পুলিশ। মানুষকে সেকেন্ড ইনিংসের সুযোগ দেওয়ার পরেও অপব্যবহারের কারণে এবার ফের পুরনো ফর্মে ফিরল পুলিশ। নবান্নে মুখ্যমন্ত্রীর কাছ থেকে গ্রিন সিগন্যাল পেয়ে আগামী বেশ কয়েক সপ্তাহ কলকাতার রাস্তায় দাবাংগিরি করতে দেখা যাবে কলকাতা পুলিশের কমব্যাট ফোর্সকে।

প্রশাসন সূত্রে খবর, কলকাতা পুলিশের আওতায় থাকা শহরের ন’টি ডিভিশনেই মোতায়েন করা হচ্ছে ‘কমব্যাট ফোর্স’ বা বিশেষভাবে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত পুলিশ কম্যান্ডোদের। স্থানীয় থানা ও প্রশাসনের সঙ্গে সামঞ্জস্য বজায় রেখে কাজ করবে এই বাহিনী। জানা গিয়েছে, প্রত্যেকটি ডিভিশনে ডিসি’র নেতৃত্বে থাকছে ৬ থেকে ৮ জন করে সশস্ত্র জওয়ান। এরা সকলে যে কোনও বিষয়ে সংশ্লিষ্ট থানার অফিসার-ইন-চার্জ এবং ডিভিশনাল ডেপুটি কমিশনারকে রিপোর্ট করবেন। ফাইবারের লাঠি-ঢাল, সেমি-অটোম্যাটিক রাইফেল থাকবে এদের সঙ্গে, পরনে জলপাই রংয়ের পোশাক। কোথাও পুলিশ ও স্বাস্থ্যকর্মীদের উপর হামলার কোনও ঘটনা ঘটলে বা সম্ভাবনা দেখা দিলেই সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনবে ‘কমব্যাট ফোর্স।’ প্রয়োজনে নিয়ম ভঙ্গকারীদের গ্রেফতারও করা হতে পারে। এদিন ড্রোন উড়িয়ে বিভিন্ন এলাকার পরিস্থিতি আগেই দেখে নেয় পুলিশ। তারপর সংশ্লিষ্ট জায়গায় পাঠানো হয় কমব্যাট ফোর্সকে। এখন থেকে এই গেম প্ল্যানিংয়েই কলকাতার রাস্তা শাসন করবে কমব্যাট ফোর্স।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here