পুলিশের কড়া শাসনে শুনশান উলুবেড়িয়া

আমাদের ভারত, হাওড়া, ২৫ জুলাই: বৃহস্পতিবার সপ্তাহের লকডাউনের প্রথমদিনে পুলিশের হালকা মনোভাবে উলুবেড়িয়া শহরের রাস্তায় অটো টোটো বাইক বাহিনীর দাপট দেখা গেলেও শনিবার ঠিক উল্টো চিত্র দেখা গেল শহরে। অবশ্য শুধু উলুবেড়িয়া শহর নয় পুলিশের কড়া শাসনে এদিন উলুবেড়িয়া, বীরশিবপুর, কুলগাছিয়া সব জায়গাতেই শুনশান থাকল রাস্তাঘাট। আর করোনা সংক্রমণ রুখতে শনিবার পুলিশের ভূমিকায় খুশি আমজনতা।

শনিবার ছিল সপ্তাহের দ্বিতীয় লকডাউনের দিন।
লকডাউনে দোকান বাজার বন্ধ রাখার পাশাপাশি বিনা প্রয়োজনে সাধারণ মানুষকে রাস্তায় না বের হওয়ার ব্যাপারে শুক্রবার পুলিশ প্রশাসন থেকে মাইকিং করে সাধারণ মানুষকে সতর্ক করা হয়। যদিও শনিবার প্রশাসনের নির্দেশ উপেক্ষা করেই অনেককেই দোকান খুলতে দেখা যায়। এমনকি বিভিন্ন জায়গায় রাস্তায় জটলাও করতে দেখা যায় অনেককে। যদিও পুলিশের পদক্ষেপে পরে দোকান যেরকম বন্ধ হয়েছে সেইরকম জটলা করে থাকা মানুষও দৌড়ে ঘরে ঢুকেছে। এদিন সকালে উলুবেড়িয়া উপ সংশোধনাগারের সামনে কয়েকজন ফল ব্যাবসায়ী দোকান খুলে ব্যাবসা করলেও পরে পুলিশ গিয়ে সব দোকান বন্ধ করে দেয়।

অন্যদিকে এদিন বীরশিবপুর কুলগাছিয়ার বিভিন্ন জায়গায় খোলা দোকান বন্ধ করে দেয় পুলিশ। এদিন পুলিশ সকলকে সতর্ক করলেও কাউকে গ্রেফতার করেনি। অপরদিকে এদিন সকাল থেকেই শুনশান ছিল উলুবেড়িয়া শহরের রাস্তার পাশাপাশি ৬ নং জাতীয় সড়ক। এদিন সেভাবে যানবাহন চলাচল না করায় প্রায় শুনশান ছিল জাতীয় সড়ক। তবে বৃহস্পতিবারের তুলনায় শনিবার অপেক্ষাকৃত ভালো লকডাউন হওয়ায় খুশি সাধারণ মানুষ। তাদের মতে একদিকে যেমন পুলিশের ভয় অন্যদিকে সেইরকম করোনা সংক্রমণের ভয়ে অনেকেই রাস্তায় বের হওয়ার সাহস দেখায়নি। তবে পরবর্তী লকডাউন বুধবারের আগে তিনদিন রাস্তায় মানুষজন বের হলে এই লকডাউনের সুফল কতটা পাওয়া যাবে সেটা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here