শবর জনগোষ্ঠীর ‘অপরাধপ্রবণ’ তকমা সরাতে উচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হচ্ছেন কলকাতা পুলিশের কনস্টেবল অরূপ মুখার্জি

সাথী দাস, আমাদের ভারত, পুরুলিয়া, ৯ জুলাই: রাজ্যের পুরুলিয়া সহ বিভিন্ন জেলায় শবর জনগোষ্ঠীর বসবাস। জনপদের এক প্রান্তে এঁদের বসবাস। ইংরেজ আমল থেকে জনগোষ্ঠী অপরাধপ্রবণ হিসাবে পরিগণিত হয়ে আসছে। আজও সেই তকমা রয়ে গিয়েছে তাঁদের। ১৮৭১ সালের ব্রিটিশদের শবর জনজাতির জন্য গঠিত হওয়া হিংসা প্রবণ জাতি আইন স্বাধীনতার এত বছর পরেও প্রয়োগ করা হচ্ছে। একটি জাতিকে উত্তরণের দিকে এগিয়ে না দিয়ে আরও অপরাধপ্রবণ করে দেওয়া হচ্ছে। এই কালা কানুনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে এবার দিল্লি আদালতের দ্বারস্থ হচ্ছেন অরূপবাবুরা। বিনামূল্যে এই মামলা লড়বেন সুপ্রিমকোর্টের প্রখ্যাত আইনজীবী অঞ্জন দত্ত। তিনিও আন্তরিক। আইনি লড়াইয়ে অরূপ বাবুকে সাহায্য করবেন তিনি।

বরাবাজার থানার অন্তর্গত অম্বুজ শবর, বেঙ্গল শবর ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্টের সদস্য হুড়া থানার অন্তর্গত কুলাবহাল গ্রামের সুভাষ শবর, সুনীল শবর, বাঁকুড়া, ঝাড়গ্রাম এবং পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার সমস্ত লোধা শবর আনন্দিত।

কলকাতা পুলিশের সাউথ ট্রাফিক গার্ডে কন্সটেবল পদে কর্মরত অরূপ মুখার্জি। তাঁর বাড়ি পুরুলিয়া জেলার পুঞ্চায়। শবর শিশুদের শিক্ষার আঙিনায় আনতে ১৫ জন শিশুকে নিয়ে ২০১১ সালে পুঞ্চায় নবদিশা নামে একটি আবাসিক স্কুল চালু করেন অরূপ বাবু। শবর সম্প্রদায়ের মধ্যে তিনি জনপ্রিয় হয়ে যান। শুধু পড়াশোনায় নয় প্রকৃত শিক্ষিত করে তুলতে সেই সব প্রথম প্রজন্মের শিশুদের খেলাধূলা, সংস্কৃতির চর্চা করান। তাঁর তদারকিতে ওই শিক্ষালয়ে এর ব্যাপ্তি ঘটে। বর্তমানে শিক্ষার্থীর সংখ্যা শতাধিক। তবে অরূপবাবু জানান, তাঁদের পরিবারের একজন হয়ে উঠতে দীর্ঘদিন সময় লেগেছে। আজ তিনি এই জনগোষ্ঠীর কাছের মানুষ। হয়তো মানবিক দায়িত্ব বোধের তাড়নায় শবর সম্প্রদায়ের অপরাধ প্রবণ জনজাতির তকমা ঘোঁচানোর জন্য উদ্যোগী হয়েছেন।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here