হিন্দুদের ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতের অভিযোগ পাক ক্রিকেটার আফ্রিদির বিরুদ্ধে

আমাদের ভারত,৩০ ডিসেম্বর: যখন পাকিস্তানি ক্রিকেটার দানিশ কানেরিয়াকে নিয়ে বিতর্ক তুঙ্গে তার মধ্যেই পাকিস্তানে নতুন করে ধর্মীয় বিভাজন নিয়ে বিতর্ক তৈরি করার অভিযোগ উঠল পাক ক্রিকেটার আফ্রিদির বিরুদ্ধে। শাহিদ আফ্রিদির একটি পুরনো ভিডিও ভাইরাল হতেই নেটিজেনদের কটাক্ষের মুখে পড়েছেন আফ্রিদি।

পাকিস্তানের একটি পুরনো টেলিভিশন শোতে গিয়েহিন্দুদের আরতি করার প্রক্রিয়াকে রীতিমত কটাক্ষ করেছিলেন আফ্রিদি। এমনকি মেয়ে আরতি করেছিল বলে রেগেমেগে টিভিও ভেঙে দিয়েছিলেন আফ্রিদি। সেটাই ফলাও করে টিভি চ্যানেলে বলেছেন তিনি। আর সেই ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই শুরু হয়েছে বিতর্ক।

সাধারণত পাকিস্তানে ভারতের বিরুদ্ধে ম্যাচ হারলেই টিভি ভেঙে ফেলার একটা প্রবণতা দেখা যায়। অনেক পাকিস্তানি নাকি হারের হতাশায় রাগে টেলিভিশন সেটটি ভেঙেই ফেলেন। সেখানে ঐ টিভি শোতে আফ্রিদিকে প্রশ্ন করা হয়েছিল তিনি কি কখনো টিভি ভেঙেছেন? সে উত্তরে আফ্রিদি বলেন,” আমি একবার টিভি ভেঙেছি। আমার স্ত্রী মাঝেমাঝে টিভি দেখতেন। তখন আমাদের এখানে স্টার প্লাসের নাটক চলত। আমি স্ত্রীকে বলতাম তুমি একা একা টিভি দেখো। বাচ্চাদের এটা থেকে দূরে রাখ। কিন্তু এরপর একদিন হঠাৎ দেখলাম টিভি চলছে আর টিভিতে স্টার প্লাস চলছে। সিরিয়াল দেখে আমার মেয়ে আরতি করার চেষ্টা করছিল। আর সেটা দেখার পর আমার খুব রাগ হয় এবং আমি টিভিটা দেওয়ালের সঙ্গে ঠুসে দি।” আফ্রিদির এই মন্তব্যের ভিডিও ভাইরাল হতেই নেটিজেনরা তাকে তুলধনা করেছেন। অনেকেই বলেছেন কে আফ্রিদিকে অধিকার দিল হিন্দুদের রীতি নীতি কে কটাক্ষ করার?

কিছুদিন আগেই শোয়েব আখতারের একটি মন্তব্য নিয়ে তোলপাড় হয়েছে পাকিস্তানের ক্রিকেট মহল। আখতার বলেন, সতীর্থ দানিশ কানেরিয়া হিন্দু হওয়ায় তাকে ড্রেসিং রুমে হেনস্থা হতে হতো। এরপর দানিসও মুখ খোলেন। এবার আফ্রিদির মন্তব্য ঘিরে নতুন বিতর্ক শুরু হলো।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here