মেদিনীপুরে করোনা পজিটিভ হাওড়ার ব্যক্তি

আমাদের ভারত, মেদিনীপুর, ৬ মে: একাধিক উপসর্গ নিয়ে মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজের মেডিসিন বিভাগে ভর্তি হওয়া এক ব্যক্তির শরীরে করোনার জীবাণু মেলায় ঘুম ছুটেছে জেলা প্রশাসনের। মঙ্গলবার রাতেই তাকে কোভিড হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। করোনা পজিটিভ রিপোর্ট হাতে পাওয়ার আগে ওই আক্রান্ত ব্যক্তি হাসপাতালের একাধিক বিভাগের বহু রোগী, চিকিৎসক ও নার্সের সংস্পর্শে আসায় কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের।

হাসপাতাল সূত্রে জানাগেছে, করোনা আক্রান্ত ওই ব্যক্তির বাড়ি ‘রেড জোন’ হাওড়া জেলার শালকিয়াতে।  মেদিনীপুর জেলা হাসপাতালে তার মেয়ে ইন্টার্নের কাজ করেন। এ মাসের ৪ তারিখ ওই তরুণী ইন্টার্ন তার বাবাকে মেদিনীপুরে নিয়ে আসেন। ওই দিনই সন্ধ্যায় তার বেশ কিছু উপসর্গ দেখা দেওয়ায় তাঁকে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজের মেডিসিনের জরুরি বিভাগে ভর্তি করা হয়। ওই বিভাগে প্রায় ৩০ জন রোগীর সঙ্গে ছিলেন তিনি। ওই ব্যক্তি রেড জোন হাওড়া থেকে  আসায় এবং করোনার উপসর্গ দেখা দেওয়ায় করোনা পরীক্ষার জন্য তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। এরই মধ্যে তার শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হওয়ায় তাঁকে হাসপাতালেরই জেনারেল মেডিসিন বিভাগে স্থানান্তরিত করা হয়। এরপর পরীক্ষার রিপোর্ট হাতে আসতেই জানা যায় তিনি করোনায় আক্রান্ত।

তড়িঘড়ি তাঁকে পাঠানো হয় মেদিনীপুরের কোভিড হাসপাতালে। শুরু হয়েছে চিকিৎসা। ইতিমধ্যেই আক্রান্তের সংস্পর্শে আসায় ২০ জনকে পাঠানো হয়েছে কোয়ারেন্টাইনে। বাকিদের শনাক্ত করার প্রক্রিয়া চলছে। জানাগেছে, ওই আক্রান্ত ব্যক্তির ছেলে কিছুদিন আগে দিল্লি থেকে হাওড়ার বাড়িতে ফিরেছেন। এই ঘটনায় প্রশ্ন উঠেছে, রেড জোন হওয়া সত্ত্বেও ওই ব্যক্তিকে কি করে এ মাসেই মেদিনীপুরে নিয়ে আসা হল? পরীক্ষার রিপোর্ট হাতে আসার আগে সাধারণ রোগীদের সঙ্গেই বা তাকে রাখা হল কেন? 

মেডিক্যাল কলেজের প্রিন্সিপাল পঞ্চানন কুণ্ডু বলেন, “বিশেষ অনুমতি নিয়েই ওই ব্যক্তিকে মেদিনীপুরে আনা হয়েছে বলে শুনেছি।  বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে।” 

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here