করোনায় সুস্থতার হার ৫০ শতাংশ! রাজ্যে সুস্থ ৫৩৪, আক্রান্ত ৪১৫, মৃত ১০

রাজেন রায়, কলকাতা, ১৬ জুন: ক্রমাগত তৃতীয় দিন রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা টেক্কা দিল সুস্থের সংখ্যাকে। আর একই সঙ্গে এই প্রথম রাজ্যে সুস্থতার হার ৫০ শতাংশ ছাড়িয়ে গেল। এই ট্রেন্ড যথেষ্ট আশাব্যঞ্জক বলে দাবি স্বাস্থ্য আধিকারিকদের। তবে একই সঙ্গে রাজ্যে করোনা টেস্টের নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা কমে যাওয়ায় বিষয়টি নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করছেন অনেকেই।

এদিন ফের ২৪ ঘন্টায় ৪১৫ জন করোনা পজিটিভে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১১৯০৯ জনে। আরও ১০ জনের মৃত্যু হওয়ায় রাজ্যে সরকারি হিসেবে মোট করোনায় মৃত্যু ৪৯৫ জনের। আরও ৫৩৪ জন সুস্থের হিসেব ধরলে মোট সুস্থ হলেন ৬০২৮ জন। এদিন অন্যান্য জেলার সঙ্গে হাওড়ায় একসঙ্গে ২০৬ জন, পশ্চিম মেদিনীপুরে ১০৩ জন, উত্তর ২৪ পরগনায় ৭২ এবং কলকাতায় ৬২ জন সুস্থ হওয়ায় সুস্থ হওয়ার হার ফের বেড়ে দাঁড়াল ৫০.৬১ শতাংশে।

এই মুহূর্তে রাজ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন ৫৩৮৬ জন। মঙ্গলবার স্বাস্থ্য দফতর থেকে প্রকাশিত বুলেটিনে আরও জানানো হয়েছে, এদিন পর্যন্ত রাজ্যের ৪৫ টি ল্যাবে মোট করোনা টেস্টের সংখ্যা ৩৫১৭৫৪ জনের। তার মধ্যে ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে করোনা পরীক্ষা হয়েছে ৮৫১২ জনের। যা আগের দিনের তুলনায় অনেক কম।

রাজ্যের ৭৭টি করোনা হাসপাতাল, ২৪টি সরকারি এবং ৫৩ টি বেসরকারি হাসপাতালে মোট ১০১০৫টি বেড আছে, আইসিইউ পরিষেবা রয়েছে ৯৪৮ জনের। ভেন্টিলেটর রয়েছে ৩৯৫টি। তার ২১.৯৩ শতাংশ রোগী ভর্তি আছেন।

সরকারি ৫৮২টি কোয়ারেন্টাইনে এখন রয়েছেন ১২২৩৭ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ৮৪৭০১ জনকে। হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ১৫২৭২৪ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ১২৮২৩৯ জনকে। শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন ফেরত পরিযায়ী শ্রমিকদের তথ্যে জানানো হয়েছে, ৯৬৮৩টি কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে ৮৫৩৪৩ জন শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হয়েছে। করোনা পরীক্ষা করে সুস্থ দেখে ১৫৯০১৭ জন শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। তিন রকম কোয়ারান্টাইন সেন্টার থেকেই দ্রুত বেশি সংখ্যক মানুষ ছাড় পাওয়ায় আশার আলো দেখছেন চিকিৎসকরা।

এছাড়া এদিনের বুলেটিনে জেলাওয়াড়ি তথ্যে জানানো হয়েছে, কলকাতায় এদিন ১৭০ আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ায় মোট সংক্রমণ ৩৯৪৬ জনের। এদিন কলকাতায় আরও ৪ জনের মৃত্যু হওয়ায় কলকাতাতেই মোট মৃত্যু ৩০১ জনের।
এছাড়া উত্তর ২৪ পরগনায় ৩ জন, হাওড়ায় ২ জন এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ১ জন মিলিয়ে মোট আরও ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। উত্তর ২৪ পরগনাতে ৭০ জন এবং হাওড়াতে ৪০ জনের সংক্রমণ উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। এদিন উত্তরবঙ্গের আলিপুরদুয়ার এবং দক্ষিণবঙ্গের ঝাড়গ্রাম এবং পশ্চিম বর্ধমান ছাড়া সংক্রমণ বেড়েছে রাজ্যের সব ক’টি জেলাতেই।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here