করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ হওয়া সত্ত্বেও সৎকারে বাধা, ১৮ ঘণ্টা বেনিয়াপুকুরের ঘরে পড়ে বৃদ্ধার দেহ

রাজেন রায়, কলকাতা, ৩০ জুলাই: করোনা নেগেটিভ এক বৃদ্ধার সৎকারে বাধা হয়ে দাঁড়ালেন তাঁর প্রতিবেশীরাই। ফলে বুধবার রাতে বেনিয়াপুকুর থানার ক্রিস্টোফার রোডের বাড়িতে দীর্ঘ ১৮ ঘণ্টা ধরে পড়ে রইল বৃদ্ধার দেহ। শেষপর্যন্ত স্থানীয় বিধায়ক স্বর্ণকমল সাহা ওই বৃদ্ধার শেষকৃত্যের ব্যবস্থা করেন। পরিবার বৃদ্ধাকে করোনা নেগেটিভ বলে দাবি করলেও স্থানীয়দের দাবি, করোনাতেই মৃত্যু হয়েছে বৃদ্ধার।

জানা গিয়েছে, বেনিয়াপুকুর থানা এলাকার ক্রিস্টোফার রোডের ওই বাড়িতে বোনের সঙ্গে থাকতেন বছর ৭১-এর ওই বৃদ্ধা নুপুর দাশগুপ্ত। কিছুদিন আগে শরীর খারাপ করোনা পরীক্ষা করা হয়। সেই সময় তাঁর রিপোর্ট আসে করোনা পজিটিভ। সেই সময় বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হয়ে যায়। কিন্তু কিছুদিন পরেই ওই বৃদ্ধার ফের টেস্ট করোনা পরীক্ষা করা হলে রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। কিন্তু করোনা থেকে সেরে ওঠা সত্ত্বেও বার্ধক্যজনিত কারণে অসুস্থতা লেগেই ছিল ওই বৃদ্ধার। ক্রমশ শারীরিক পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছিল। বুধবার বিকেল পাঁচটা নাগাদ হঠাৎ বাড়িতেই তাঁর মৃত্যু হয়।

খবর পেয়ে আত্মীয়-পরিজনরা দেহটি শ্মশানে নিয়ে যাওয়ার জন্য উদ্যত হলে প্রতিবেশীরা বাধা দেন। তাঁরা দাবি করেন, ওই বৃদ্ধার করোনাতেই মৃত্যু হয়েছে, তাই এভাবে দেহ নিয়ে যাওয়া যাবে না। কোভিড প্রোটোকল মেনে তবেই দেহ নিয়ে যেতে পারবেন আত্মীয়েরা। আত্মীয়স্বজন বারবার বৃদ্ধার করোনা মুক্তির দাবি করলেও তা মানতে নারাজ ছিলেন তার প্রতিবেশীরা। আর এই টানাপড়েনের ১৮ ঘন্টারও বেশি সময় ধরে আটকে থাকে ওই বৃদ্ধার দেহ।

এরপর যোগাযোগ করা হয় পুলিশে ও পুরসভায়। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে জটিলতার জেকে পরের দিন সকাল ১১ টা পর্যন্তও দেহ পড়ে থাকে বাড়িতেই। তারপর বিধায়ক স্বর্ণকমল সাহা বৃদ্ধার দেহ দাহের ব্যবস্থা করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here