দেশের কোন ৩০ কোটি মানুষ আগে করোনার টিকা পাবেন, তালিকা দিয়ে জানাল কেন্দ্র

আমাদের ভারত,২৩ অক্টোবর: কবে আসবে করোনার টিকা তা নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠেছিল এতদিন। কেন্দ্র স্পষ্ট জানিয়েছিল একুশের গোড়াতেই দেশে করোনার টিকা চলে আসার সম্ভাবনা রয়েছে। একাধিক সংস্থার টিকা দেশের বাজারে চলে আসবে বলে দাবি করেছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী। তারপরই প্রশ্ন উঠেছিল টিকা বাজারে এলে প্রথম কাদের দেওয়া হবে? টিকা পাওয়ার ক্ষেত্রে কারা অগ্রাধিকার পাবেন তার উত্তরে কেন্দ্র বলেছিল গুরুত্ব বুঝে টিকার সমবন্টন করা হবে।

কারা পাবেন টিকা আগে তার গাইডলাইনও তৈরি হচ্ছে বলে জানানো হয়েছিল। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে ৩০ কোটি মানুষকে আগে করোনার টিকা দেওয়া হবে। তার জন্য প্রটোকলও তৈরি হয়েছে। রাজ্যের কাছে এই প্রটোকল পৌঁছে দেওয়া হবে। কেন্দ্রের নির্দেশিকা মেনেই এই টিকাকরণ করতে হবে। কোন বয়সের মানুষদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে তার তালিকাও তৈরি হচ্ছে। এর জন্য স্বাস্থ্যমন্ত্রক রাজ্য সরকারগুলির সঙ্গে মিলে কাজ করছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রক এর জন্য ফরমেট তৈরি করেছে। যেখানে রাজ্যগুলি অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে জনসংখ্যার তালিকা জমা দিতে পারে। এই ভ্যাকসিন দেওয়ার ক্ষেত্রে কারা অগ্রাধিকার পাবে তার একটি রূপরেখা দিয়েছে কেন্দ্র। পেশা, বয়স সহ ইত্যাদি গুরুত্ব বুঝে চারটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করেছে কেন্দ্র। তাতে প্রথমেই রয়েছেন ডাক্তার, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী, আশা কর্মী, ডাক্তারি পড়ুয়ারা। এরা সব মিলিয়ে প্রায় ১ কোটি মানুষ। দ্বিতীয় পর্যায়ে রয়েছে পুলিশ প্রশাসন, মিউনিসিপ্যালিটি কর্মী। এরা মিলে অন্তত দু কোটি মানুষকে টিকা দেওয়ার তালিকা তৈরি করতে বলা হয়েছে। তৃতীয় ক্যাটাগরিতে রয়েছেন ২৬ কোটি মানুষ। যাদের বয়স ৫০ বছরের বেশি। চতুর্থ ক্যাটাগরিতে থাকবে কোমবির্ডিটি রোগীরা এবং ৫০ বছরের কম লোকজন যাদের পেশার জন্য বেশি মানুষের সঙ্গে মেলামেশার করার প্রয়োজন হয়।

এই চার ক্যাটাগরিতে কারা থাকবেন তাদের তালিকা তৈরি করে নভেম্বরের মাঝামাঝি কেন্দ্রকে জমা দিতে হবে। এই তালিকায় যাদের রাখা হবে তাদের আধার কার্ড ও অন্যান্য পরিচয় পত্র দিতে হবে রাজ্যগুলিকে। কেন্দ্র জানিয়েছে কাদের ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে কি পরিমান টিকা বিতরণ করা হচ্ছে এবং টিকা সংরক্ষণের কী কী ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে তার রিপোর্ট তৈরি করা হচ্ছে। টিকার বিতরণ ও সংরক্ষণের সব তথ্য রেকর্ড করা থাকবে।

টিকা কিভাবে বিতরণ হবে তা ঠিক করার জন্য ন্যাশনাল ভ্যাক্সিন রেগুলেটরি কমিটি তরফে একটি বিশেষজ্ঞ দল ঠিক করা হয়েছে এই দলটি ঠিক করবে কোন ভ্যাক্সিনটি ব্যবহার করা যথার্থ হবে। এছাড়াও টিকা কিভাবে বিতরণ হবে তাও ঠিক করবে এই বিশেষজ্ঞ দল। এর জন্য রাজ্য সরকারের সঙ্গেও কথা বলবে দলটি। ইতিমধ্যেই টিকার উৎপাদন বন্টন প্রক্রিয়াসহ টিকা সংরক্ষণের রূপরেখা তৈরি করেছে বিশেষজ্ঞ কমিটি। দেশের সমস্ত কোল্ড স্টোরেজের পরিকাঠামো দেখিয়ে খতিয়ে দেখেছে তারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here