বেনজির সিপাহী বিদ্রোহে মার খেলেন খোদ ডিসি কমব্যাট, সামলাতে ঘটনাস্থলে মুখ্যমন্ত্রী

রাজেন রায়, কলকাতা, ২০ মে: করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সবচেয়ে সামনের সারিতে লড়ছেন চিকিৎসক, পুলিশ এবং সাফাইকর্মীরা। অথচ মঙ্গলবার রাতে নিজেদের প্রশাসনিক বিভাগেই নজিরবিহীন ‘সিপাহী বিদ্রোহ’ প্রত্যক্ষ করল কলকাতা পুলিশ। পুলিশকর্মীদের সুরক্ষার কথা না ভেবে ছুটি না দিয়ে টানা খাটানো হচ্ছে, এই অভিযোগে মঙ্গলবার রাতে পুলিশ ট্রেনিং স্কুলে নিজের অধস্তন সহকর্মীদের হাতেই আক্রান্ত হলেন ডিসি কমব্যাট নবনীত সিং পল। পরিস্থিতি সামলাতে বুধবার সকালে পুলিশ কমিশনার-সহ ছুটে আসতে হয় খোদ মুখ্যমন্ত্রীকে।

সূত্রের খবর, মঙ্গলবার রাত ১০ টা নাগাদ এজেসি বোস রোডে পুলিশ ট্রেনিং স্কুলের ভিতরে ডিসির কাছে এই নিয়ে অভিযোগ জানাতে যান একদল পুলিশ কর্মী। তখনই শুরু হয় চরম বচসা। সূত্রের খবর, বচসা চলাকালীন খোদ ডিসির ওপরেই চড়াও হন একদল বিক্ষুব্ধ পুলিশ কর্মী।তাঁকে মারধরও করা হয় বলে সূত্রের খবর।

কমব্যাট ফোর্সের পুলিশকর্মীদের অভিযোগ, তাঁরা যে ব্যারাকে রয়েছেন, সেখানে একজন সাব-ইন্সপেক্টরের করোনা পজেটিভ ধরা পড়ার পরেও, ব্যারাক স্যানিটাইজ করা হয়নি৷ তাঁদের পর্যাপ্ত পরিমাণে হ্যান্ডস্যানিটাইজার এবং মাস্ক দেওয়া হচ্ছে না৷ বাস্তবে সমস্যা সমাধানের কোনও চেষ্টাই করেননি তাঁরা৷ এমনকী করোনা মহামারীতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা ডিউটি করার পরও তাঁরা বিশ্রাম নেওয়ার সময়টুকু পাচ্ছেন না বলেও অভিযোগ৷ সহকর্মী আক্রান্ত হওয়ার পরেও তাদের কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়নি। পিটিএসের ওই পুলিশ কনস্টেবল করোনা আক্রান্ত হওয়ার পরই মঙ্গলবার রাতে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন অন্যান্য পুলিশকর্মীরা এবং রাস্তা অবরোধ করেন।

সুপার সাইক্লোন আমফানের জন্য এই পুলিশ কনস্টেবলদের মোতায়েন করা হয়েছিল৷ কিন্তু ব্যারাক স্যানিটাইজ না করায় ক্ষোভে ফেটে পড়েন৷ পুলিশ ট্রেনিং স্কুলের বাইরে শুরু হয় বিক্ষোভ৷ বুধবার সকালে নবান্ন যাওয়ার পথে আচামকাই পুলিশ ট্রেনিং স্কুলে উপস্থিত হন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ সূত্রের খবর এদিন ১০টা বেজে ১০ মিনিটে বিক্ষোভস্থলে পৌঁছন তিনি৷ সেখানে ১০ মিনিট ছিলেন৷ মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন নগরপাল অনুজ শর্মা৷
গোটা ঘটনার কথা জানানো হয়েছে পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মাকে। বিক্ষুব্ধদের দাবি গুরুত্ব দিয়ে খতিয়ে দেখার পাশাপাশি অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইন মেনে কড়া পদক্ষেপ করা হবে বলে লালবাজার সূত্রে খবর।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here