ভারত বাংলাদেশ সীমান্তে পণ্য রপ্তানি চালু করতে জিরো পয়েন্টে দুদেশের প্রতিনিধি দল

সুশান্ত ঘোষ, আমাদের ভারত, উত্তর ২৪ পরগণা, ২৯ এপ্রিল: লকডাউনে দীর্ঘ দিন বন্ধ ভারত বাংলাদেশ আমদানি ও রপ্তানি। কেন্দ্রের নির্দেশ মত দুই দেশের বাণিজ্যিক ব্যবস্থা চালু করতে সামাজিক দূরত্ব বাজায় রেখে পেট্রাপোলের জিরো পয়েন্টে মাল খালি করার প্রস্তাব দিলেন পেট্রাপোল ক্লিয়ারিং সংগঠন। বুধবার দুই দেশের মধ্যে বৈঠেকে বাংলাদেরে কাছে প্রস্তাব দেয় ভারত।

সূত্রের খবর, সম্প্রতি কেন্দ্রে ও রাজ্যের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ বৈঠকে পেট্রাপোল ক্লিয়ারিং ও ব্যবসায়ী সমিতি গুলিকে জানায় তারা চাইলে পেট্রাপোল ও বেনাপোলের জিরো পয়েন্টে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে আমদানি ও রপ্তানি চালু করতে পারে। সেই মত আজ সকালে বেনাপোলের ক্লিয়ারিং, ব্যবসায়ী ও কাউন্টারের সমিতির সঙ্গে বৈঠক করে পেট্রাপোল ক্লিয়ারিং ও ব্যবসায়ী সমিতির প্রতিনিধিরা। সেখানে ভারতের পক্ষ থেকে জিরো পয়েন্টে মাল খালি করার প্রস্তাব দেওয়া হয়। কিন্তু বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ইতিবাচক তেমন কোনও উত্তর দেয়নি। লতারা জানিয়েছেন, তাদের ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে জানাবেন।

সম্প্রতি বাংলাদেশ,নেপাল, ভুটান, সীমান্তের সমস্ত বাণিজ্য করিডর দিয়ে অত্যাবশ্যক পণ্য চলাচল শুরু করার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। তার প্রেক্ষিতে এ দিনের বৈঠক বলে জানা গিয়েছে। প্রশাসন সূত্রের খবর, পেট্রাপোল স্থলবন্দর এলাকায় প্রায় দু’হাজার পণ্য ভর্তি ট্রাক আটকে আছে দীর্ঘদিন ধরে। ওই সমস্ত পণ্য রফতানির জন্য বাংলাদেশে যাওয়ার কথা। ট্রাকে পাটবীজ, মাছের খাবার তৈরির উপকরণের মতো অত্যাবশ্যক পণ্যও রয়েছে। আটকে থাকা পণ্য কী ভাবে দ্রুত বাংলাদেশে পাঠানো সম্ভব, তা নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

পেট্রাপোল ক্লিয়ারিং এজেন্ট স্টাফ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক কার্তিক চক্রবর্তী জানানন, আটকে থাকা ট্রাকগুলির মধ্যে প্রায় ৪০০টি ট্রাকে অত্যাবশ্যক পণ্য রয়েছে বলে কেন্দ্রের দেওয়া তালিকা থেকে জানা গেছে।

অন্যদিকে লকডাউনের জেরে বন্ধ এই পেট্রাপোল স্থল বন্দরের কয়েক হাজার শ্রমিকরাও কাজ ফিরে পাওয়ার আশায় দিন গুনছেন।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here