উপচে যাবে হাসপাতাল! তাই হোটেল ব্যাঙ্কোয়েট হলে করোনা চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে

আমাদের ভারত, ১৪ জুন: উপচে যেতে পারে হাসপাতাল। তাই করোনা চিকিৎসার জন্য দিল্লিতে নতুন করে ২০ হাজার বেডের ব্যবস্থা করা হবে। তার জন্য দিল্লির বন্ধ থাকা হোটেল ও ব্যাঙ্কোয়েট হলকে ব্যবহার করা হবে। করোনা মোকাবিলায় এমনটাই পরিকল্পনা দিল্লি সরকারের।

সূত্রের খবর করোনা হাসপাতালগুলিতে ১১হাজার বেড চালু করা হবে। তার জন্য ইতিমধ্যেই ৪০টি হোটেল চিহ্নিত করা হয়েছে। হোটেল গুলির ব্যাঙ্কোয়েটে অন্তত ৪ হাজার বেডের ব্যবস্থা করা হবে। বাকি বেডের ব্যবস্থা হবে অন্যান্য নার্সিংহোমে। সেগুলি পরিচালনা করবে সংশ্লিষ্ট নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ। প্রতিটি নার্সিংহোম কে ১০ থেকে ৪৯ টি বেড করোনা রোগীদের জন্য সংরক্ষণের নির্দেশ দেওয়া হতে পারে দিল্লি সরকারের তরফে বলে খবর।

আর এর ফলে ৫ হাজার বেডের সংস্থান করা সম্ভব। ইতিমধ্যে দিল্লিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩৮ হাজার ছুঁড়ে ফেলেছে। গত দু’দিনে সেখানে প্রায় ২ হাজার করে নতুন আক্রান্ত সন্ধান পাওয়া গেছে। দিল্লির উপমুখ্যমন্ত্রী মণীশ সিসোদিয়ার ধারণা, যেভাবে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে তাদের জুলাই মাসের শেষে আক্রান্তের সংখ্যা ৫ লাখে পৌঁছে যাবে। আর এই পরিস্থিতি সামাল দিতেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধনের সঙ্গে বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়াল।

আনলক গান শুরু হতেই দিল্লিতে ভয়াবহ রূপ নিয়েছে করোনা সংক্রমণ। এদিকে দেশের শীর্ষ আদালত কেজরিওয়াল সরকারের ব্যর্থতা নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করেছে ইতিমধ্যেই।

রবিবার দিল্লির করোনা পরিস্থিতি নিয়ে অমিত শাহ ও দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীর মধ্যে বৈঠক হয়েছে। সেখানে পরিকাঠামো সম্প্রসারণ,সহ স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষা, সংক্রমণ প্রতিরোধে বিধিনিষেধ নিয়েও আলোচনা হয়েছে বলে খবর। এছাড়া দিল্লি সরকারকে রেলের ৫০০ দেওয়া হবে। এই কোচে ৮০০০ বেডের ব্যবস্থা থাকবে। আগামী দু’দিনের কোভিড পরীক্ষার সংখ্যা দ্বিগুণ করা হবে। পরবর্তীতে তিনগুণ করা হবে। দিল্লির কনটেইনমেন্ট জোনে বাড়ি বাড়ি গিয়ে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে। অক্সিজেন সিলিন্ডার, ভেন্টিলেটর, পালস অক্সিমিটারের মত সরঞ্জাম দেবে কেন্দ্র সরকার। ইতিমধ্যে দিল্লির শাকুরবস্তিতে দশটি রেলকোচ রাখা হয়েছে। দিল্লিতে করানো মোকাবিলায় সহায়তা করতে কেন্দ্র ৫ আধিকারিককেও দেবে। এছাড়াও কেন্দ্রেরকরণা মোকাবিলায় স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাগুলির সাহায্য নেওয়া হবে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here