নদিয়া জেলা শিশু শ্রমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকাদের বকেয়া বেতন ও ছাত্র-ছাত্রীদের বকেয়া স্টাইপেনের দাবিতে অবস্থান-বিক্ষোভ

স্নেহাশীষ মুখার্জি, আমাদের ভারত, নদিয়া, ১২ অক্টোবর: শিক্ষক-শিক্ষিকাদের বকেয়া বেতন ও ছাত্র-ছাত্রীদের মাসিক বকেয়া স্টাইপেনের দাবিতে নদিয়া জেলা শিশু শ্রমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষিকারা অবস্থান-বিক্ষোভে বসলেন নদিয়া জেলা শাসকের দপ্তরের সামনে। বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষিকাদের দাবি, এই সমস্যা তাদের না মেটা পর্যন্ত তারা অবস্থান বিক্ষোভ চালিয়ে যাবে।

জানাগেছে, নদীয়া জেলার শিশু শ্রমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষিকারা বকেয়া ৫০ মাসের বেতন পাননি। এমনকি বিগত ৩৬ মাস ধরে এই স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীরা সরকারি স্টাইপেন থেকেও বঞ্চিত হয়েছে বলে অভিযোগ। এর আগেও স্কুল কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে বহুবার জেলা শাসকের কাছে ডেপুটেশন দেওয়া হয়েছে। ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরেও বকেয়া বেতন ও বকেয়া স্টাইপেনের দাবিতে জেলা শাসকের কাছে শিক্ষক শিক্ষিকারা ডেপুটেশন দেন। অভিযোগ, সেই সময় তৎকালীন জেলাশাসক তাঁদের আশ্বস্ত করেছিলেন যে তিন মাসের মধ্যে তারা তাদের বকেয়া বেতন পেয়ে যাবেন। কিন্তু এর মধ্যে কোভিড পরিস্থিতি চলে আসে। ফলে আন্দোলন ৬ মাস বন্ধ থাকে।

শিক্ষক-শিক্ষিকাদের দাবি, তাঁরা কেন্দ্র রাজ্যের বঞ্চনার শিকার। আগে নদিয়া জেলা শিশু শ্রমিকের একশটা স্কুল ছিল জেলায়। এখন তা দাঁড়িয়েছে ৮৫ তে। ১৫ টা স্কুল জেলা প্রশাসন বন্ধ করে দিয়েছে। আগে এখানে গড়ে ৫০টা ছাত্র-ছাত্রী ছিল। যা এখন গড়ে ২০ টায় দাঁড়িয়েছে। কেন্দ্র এবং জেলা প্রশাসনের উদাসীনতায় ছাত্র-ছাত্রীদের পরিসংখ্যান কমিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে। প্রতিটা বিদ্যালয়ে ৫ জন করে শিক্ষক শিক্ষিকা ও ২ জন করে রাধুনী আজ দীর্ঘ ৫০ মাস ধরে তাদের প্রাপ্য টাকা থেকে বঞ্চিত। আজ নদিয়া জেলার শিশুশ্রমিক বিদ্যালয়ের তরফ থেকে শিক্ষক-শিক্ষিকারা ডেপুটেশন দেন নদিয়া জেলা শাসকের দপ্তরে সামনে। তাদের দাবি, জেলাশাসক তাদের দাবি না মানলে তারা দীর্ঘ আন্দোলনে নামবে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here