নবান্ন-রাজভবন দ্বৈরথ! ডিজির চিঠি এনআইএ কর্তাকে, নিষ্ক্রিয়তাকে ব্যঙ্গ রাজ্যপালের

রাজেন রায়, কলকাতা, ২১ সেপ্টেম্বর: আল কায়দা জঙ্গি ইস্যু নিয়ে ফের শুরু নবান্ন রাজভবন দ্বৈরথ। একদিকে রাজ্য পুলিশের চোখের সামনে দিয়ে এনআইএ ৬ জন জঙ্গিকে ধরে নেওয়ায় এবং তার খবর রাজ্য প্রশাসনের কাছে না থাকায় প্রবল অপদস্থ হয়েছে রাজ্য পুলিশ। এই আচরণের ব্যাখ্যা ইতিমধ্যেই এনআইএ পূর্বাঞ্চলীয় কর্তাকে চিঠি পাঠিয়েছেন ডিজি বীরেন্দ্র। অন্যদিকে, পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ তুলে রাজ্য পুলিশের ডিজিকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘রাজ্য পুলিশের ডিজি উটপাখির মতো বালিতে মাথা গুঁজে আছেন।’

এদিনের টুইটে রাজ্য পুলিশের ডিজিকে উদ্দেশ্য করে রাজ্যপাল বলেন, ‘রাজ্য পুলিশের ডিজি উটপাখির মতো বালিতে মাথা গুঁজে আছেন।‌শোচনীয় আইনশৃঙ্খলা নিয়ে তাঁর ডোন্ট কেয়ার ভাব দেখে আমি হতবাক। রাজ্য তো জঙ্গি, অপরাধী, বেআইনি বোমা তৈরির স্বর্গোদ্যান।’
তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পুলিশ ও প্রশাসনকে তীব্র কটাক্ষ করে টুইটে লিখেছেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পুলিশ ও প্রশাসনের একাংশ সরীসৃপে পরিণত হয়েছেন। ক্ষমতার অলিন্দে শুধু তাঁদের অবাধ যাতায়াত। সরকার বহির্ভূত শক্তি প্রশাসনকে গ্রাস করেছে। যা অসাংবিধানিক ও অপরাধমূলক। একমাত্র সংবিধান মেনে প্রশাসন পরিচালনাই যথার্থ।’

তিনি মমতা সরকারের সমালোচনা করে টুইটে আরও লিখেছেন, ‘মমতা প্রশাসন মানবাধিকারের সবচেয়ে বড়ো বিপদঘণ্টা। শাসকদলের হার্মাদদের দিয়ে জুলুমবাজি এদের প্রধান কাজ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এমনকি সাম্প্রদায়িক উত্তেজনার সময়েও একচোখো হয়ে বিশেষ শ্রেণির উপর ব্যবস্থা নেওয়া, অন্য অংশকে রক্ষা করার ঘটনা অনভিপ্রেত এবং গ্রহণীয় নয়।’

বস্তুত, মুর্শিদাবাদের ঘটনার কোনও খবর ছিল না নবান্ন থেকে রাজ্য পুলিশ এমনকি মুর্শিদাবাদের পুলিশ সুপারের কাছেও। এই নিয়ে স্বাভাবিক ভাবেই আসরে নেমেছে বিরোধীরা। তাদের আক্রমণের পাশাপাশি ডিজিকে আক্রমণ করে এদিন ট্যুইট করেছেন খোদ রাজ্যপালও।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here