পশ্চিমবঙ্গের পরিস্থিতি চিন্তাজনক : শাহের সঙ্গে বৈঠক রাজ্যপালের

আমাদের ভারত, ২০ জুলাই: একের পর এক নানা ইস্যুতে রাজ্য সরকারের সঙ্গে টানাপোড়েন চলছে রাজ্যপালের। এই পরিস্থিতিতে এবার দিল্লিতে গিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে সাক্ষাত করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর। বৈঠকে কী কী বিষয়ে আলোচনা হয়েছে জানা না গেলেও বৈঠকের আগে রাজ‌্যপালের করা টুইটে থেকে জানা গেছে রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়েই আলোচনা হয়েছে সম্ভবত।

সোমবার বারোটা নাগাদ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠক করেছেন রাজ্যপাল। প্রায় দেড় ঘণ্টা বৈঠক হয় দুজনের মধ্যে। তবে দুপক্ষের মধ্যে কি বিষয়ে আলোচনা হয়েছে জানা যায়নি। সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলে বৈঠকের পর বিমানবন্দরের উদ্দেশ্যে রওনা দেন রাজ্যপাল। জানা গেছে কলকাতা ফেরার জন্য রওনা দিয়েছেন তিনি। তবে লখনৌ হয়ে কলকাতা ফেরার কথা রাজ্যপালের বলে খবর।

অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠকের আগে একাধিক টুইট করেন রাজ্যপাল। সেখানে রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন তিনি। রাজ্যপালের কথায় “পশ্চিমবঙ্গের উদ্বেগজনক পরিস্থিতি নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলব। রাজ্যের অবস্থা এবং যেভাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রশাসন চলছে তা শাহকে জানাবো।”

“তিনি আরোও লিখেছেন, রাজ্যবাসী কল্যাণ আমার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।” মানুষকে দুর্দশা মুক্ত করার জন্যই তিনি কাজ করবেন বলেও জানিয়েছেন। তিনি টুইটে মনে করিয়ে দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গবাসীর প্রতি দায়বদ্ধতা শপথ নিয়েছেন তিনি।

কখনো করোনায় মৃতের সংখ্যা, কখনো চিকিৎসাব্যবস্থা, কখনো বা করোনায় মৃতের দেহ পোড়ানোর জটিলতা আবার কখনো বিজেপি বিধায়কের মৃত্যু নিয়ে গত কয়েক মাস ধরে রাজ্য প্রশাসনের সঙ্গে সংঘাতে জড়িয়েছেন রাজ্যপাল। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে তার দীর্ঘ পত্রযুদ্ধ হয়েছে। আচার্য হিসেবে রাজ্যপালের ডাকা ভার্চুয়াল বৈঠকে রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হাজিরা না হওয়ায় সেই সংঘাত আরো তীব্রতর হয়েছে।

এক্ষেত্রে রাজ্যের অভিযোগ বিধি মেনে বৈঠক না ডাকায় তাতে সম্মতি দেওয়া হয়নি। তৃণমূলের নেতারা রাজ্যপালের উদ্দেশ্যে কটাক্ষের সুরে বলেছেন, রাজ্যপাল তার সীমা অতিক্রম করে রাজনৈতিক নেতাদের মতো কথা বলছেন। সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় রাজ্যপালের উদ্দেশ্যে বলেছেন,” আমরা প্রতিদিন সকাল থেকে করোনা সামলাবো নাকি ওঁর প্রশ্নের জবাব দেবো” ব্যতিক্রমী ভাবে মুখ্যমন্ত্রীর এই মন্তব্যের কোনো প্রতিক্রিয়া দেননি রাজ্যপাল।

এরপরই দিল্লি তার যাওয়ার খবর জানা যায়। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য রাজ্যপাল ছাড়াও রাজ্য বিজেপি সভাপতিও আজ দিল্লি সফরে গেছেন। তবে তিনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করবেন কিনা জানা যায়নি।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here