লকডাউনকে কার্যকরী করতে ডায়মন্ড হারবার জেলা পুলিশের উদ্যোগ

আমাদের ভারত, দক্ষিণ ২৪ পরগণা, ৩ মে: ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলাকে রেড জোন বলে ঘোষণা করেছে। পাশাপাশি সরকারও এই লকডাউনের মেয়াদ বাড়িয়েছে। আগামী ১৭ মে পর্যন্ত লকডাউনকে বাড়ানো হয়েছে। কিছু মানুষ সেই সরকারি নির্দেশিকা না মেনে রাস্তায় বেরচ্ছেন। রবিবার সকাল থেকে দক্ষিণ ২৪ পরগণার ডায়মন্ড হারবার পুলিশ জেলার অন্তর্গত বিভিন্ন থানা এলাকায় এই লকডাউনকে সফল করার জন্য রাস্তায় নামলো। মাস্ক ছাড়া রাস্তায় বের হওয়া থেকে শুরু করে অপ্রয়োজনে রাস্তায় বের হওয়ার অপরাধে এদিন মোট ৬৮ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ডায়মন্ড হারবার পুলিশ জেলার অন্তর্গত বিষ্ণুপুর থানা, ডায়মন্ড হারবার থানা সহ আশপাশের বেশ কয়েকটি জায়গায় করোনা পজিটিভ রোগীর সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। কিন্তু তবু এলাকার মানুষ সরকারি নিষেধাজ্ঞা না মেনে বাড়ির বাইরে কারণে অকারণে বেড়িয়ে পড়ছেন। ইতিমধ্যেই এই জেলাকে রেড জোন ঘোষণা করা হয়েছে কেন্দ্রের তরফ থেকে। বাড়ানো হয়েছে লকডাউনের সময়সীমাও। মানুষ সরকারি নির্দেশিকা না মানলে এলাকায় করোনা সংক্রমণ আরও বৃদ্ধি পাবে। বারে বারে প্রচার করে কোনও লাভই হচ্ছে না। আর সংক্রমণ বাড়তে থাকলে আবারও বাড়বে লকডাউন। তাই এবারের তৃতীয় দফার লকডাউন যাতে এলাকার মানুষ মেনে চলেন সেই কারণে কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করা হল ডায়মন্ড হারবার পুলিশ জেলার তরফ থেকে। ডায়মন্ড হারবারের পুলিশ সুপার ভোলানাথ পান্ডের নির্দেশে এদিন সকাল থেকেই এই পুলিশ জেলার প্রতিটি থানা এলাকায় মহকুমা পুলিশ আধিকারিক ও অন্যান্য পুলিশ আধিকারিকদের নেতৃত্বে অভিযান চালানো হয়। এলাকার সমস্ত বাজার গুলি পরিদর্শন করে পুলিশ। মানুষজন যাতে লকডাউনের এই নির্দেশিকা মেনে চলাচল করেন সেই বার্তা দেওয়া হয় পুলিশের তরফ থেকে।

এ বিষয়ে ডায়মন্ড হারবার জেলার পুলিশ সুপার ভোলানাথ পান্ডে বলেন, “লকডাউনকে কার্যকরী করে এলাকার মানুষের নিরাপত্তা বজায় রাখার কাজ চলছে। বিভিন্ন ভাবে সচেতনতামূলক প্রচার করেও কিছু মানুষ সরকারি নিষেধ মানছেন না। এরকমই ৬৮ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তৃতীয় দফার লকডাউন যাতে এলাকায় ভালোভাবে পালিত হয় সেদিকে পুলিশ নজর রাখছে”।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here