“গোলটুপি হলে পারতো না, শিখ বলেই পুলিশ পাগড়ি খুলেছে”, মমতা সরকারকে আক্রমণ দিলীপ ঘোষের

আমাদের ভারত, ১০ অক্টোবর: বিজেপির নবান্ন অভিযানে বলবিন্দর সিং এর মাথার পাগড়ী খোলা নিয়ে রাজ্যের রাজনৈতিক মহলে শুরু হয়েছে চাপানুতোর। বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ মমতা সরকারকে আক্রমণ করে বলেছেন, বলবিন্দর শিখ বলেই পাগড়ি খুলেছে পুলিশ, গোলটুপি হলে পারতো না। মমতা সরকারকে সংখ্যালঘু তোষণের রাজনীতি নিয়ে এইভাবে আক্রমণ করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি।

নবান্ন অভিযানের দিন ধরপাকড়ের সময় পুলিশের সঙ্গে ধাক্কা ধাক্কিতে বলবিন্দর সিং নামে এক দেহরক্ষীর মাথার পাগড়ি খুলে যায়। পুলিশ তার পরোয়া না করেই তাকে ধরে নিয়ে যায়, এমনকি তার খুলে যাওয়া চুল ধরেও টানা হয়েছে বলে অভিযোগ।

ওই শিখ যুবকের পাগড়ি খোলা নিয়ে সরগরম হয়েছে রাজ্য রাজনীতি। এই ঘটনায় মমতা সরকারের বিরুদ্ধে আক্রমণ করেছেন দিলীপ ঘোষ তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু তোষণের রাজনীতিকে কটাক্ষ করে বলেছেন, শিখ বলেই পুলিশ পাগড়ি খুলেছে গোলটুপি হলে খুলতে পারতো না। তার অভিযোগ অগণতান্ত্রিক ও তোষণের রাজনীতি চলছে বাংলায়। দিলীপ ঘোষ দাবি করেছেন বিজেপি নেতার দেহরক্ষী বলবিন্দার সিং-এর কাছে যে পিস্তল উদ্ধার করেছে পুলিশ সেটা লাইসেন্সপ্রাপ্ত। ফলে তার বিরুদ্ধে কেস দেওয়া যায় না। তাকে গ্রেফতার করার কোনো আইন নেই। পুলিশ যেভাবে তার ওপর অত্যাচার করেছে তা অত্যন্ত নিন্দনীয়।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এই ঘটনার নিন্দা করেছেন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং। তিনি বলেছেন শিখদের সঙ্গে এই আচরণ কখনো মেনে নেওয়া যায় না। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রির উদ্দেশ্যে ঘটনাটি খতিয়ে দেখার কথা বলেছেন ক্রিকেটার হরভজন সিং। এদিকে এই ঘটনার মোড় ঘুরছে আশঙ্কা করেই কলকাতা পুলিশের পক্ষ থেকে বিবৃতি জারি করে বলা হয়েছে, রাজ্য পুলিশ সভ সম্প্রদায়কে সমান নজরে দেখে। সব সম্প্রদায়ের জন্য সম্মানের বিষয়ে তারা যথেষ্ট সচেতন।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here