মুখে মাস্ক না থাকায় গলায় দড়ি দেওয়া ব্যক্তিকে দেখলেন না চিকিৎসক! ভাঙ্গচুর হাসপাতাল

সুশান্ত ঘোষ, আমাদের ভারত, উত্তর ২৪ পরগণা, ১৪ জুন: করোনা আতঙ্কে মুখে মাস্ক না থাকায় গলায় দড়ি দেওয়া এক ব্যক্তিকে দেখলেন না চিকিৎসক। তার জেরে মৃত্যু হয় ওই ব্যক্তির, এমনই অভিযোগ তুলে হাসপাতাল ভাঙ্গচুর করল আত্মীয়রা। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগণার হাবড়া হাসপাতালে। মৃতের নাম গৌতম দাস (৪২)। পরে পুলিশ গিয়ে উত্তেজনা আয়ত্বে আনে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের খবর, অশোকনগর ১নম্বর ওয়ার্ডের বনবনিয়া এলাকার বাসিন্দা গৌতম দাস নামে এক ব্যক্তি গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। তাকে হাবড়া হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু তার মুখে মাস্ক না থাকায় চিকিৎসক তাকে দেখতে আপত্তি জানায় বলে অভিযোগ। এরপর ওই ব্যক্তির পরিবারের লোকজনের সঙ্গে শুরু হয় বচসা। এরপর চিকিৎসককে মারতে উদ্যত হয়। হাতাহাতি শুরু হয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে। এরপর পরিবারের লোকজন ভাঙ্গচুর চালায় হাসপাতালে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে হাবড়া থানার পুলিশ গিয়ে উত্তেজনা আয়ত্ত্বে আনে।

পরিবার সূত্রে খবর, গৌতম দাস পেশায় গাড়িচালক। শনিবার রাতে গাড়ির মালিকের সঙ্গে কোনও বিষয়ে ঝামেলা হয়। এরপর বাড়ি এসে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে গৌতম। পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে হাবড়া হাসপাতালে নিয়ে যায়। কিন্তু তার মুখে মাস্ক না থাকায় তাকে দেখতে আপত্তি করে হাসপাতালের চিকিৎসক এমনটাই অভিযোগ। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই মৃত্যু হয় গৌতমের। এরপর তার পরিবারের লোকজন হাসপাতালে ভাঙ্গচুর চালায় বলে। ভাঙ্গচুর করতে গিয়ে আহত হয় পরিবারের দুই সদস্য। একজনকে বারাসাত স্থানান্তর করা হয়।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here