হাওড়ায় চিকিৎসক বাবার মৃতদেহ তিনদিন ধরে ঘরে আগলে রইল মেয়ে

আমাদের ভারত, হাওড়া, ১১ জুন: কলকাতার রবিনসন স্ট্রিটের ছায়া এবার হাওড়ার জগাছায়। বৃদ্ধ চক্ষু চিকিৎসক বাবার মৃতদেহ তিনদিন আগলে ঘরে বসেছিলেন মেয়ে। বৃহস্পতিবার প্রতিবেশী মারফত বাবার মৃত্যু সংবাদ পুলিশকে দেয় মেয়ে। পরে জগাছা থানার পুলিশ বৃদ্ধের ফ্ল্যাট থেকে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে।

জানা গেছে, অমল কুমার মান্না (৭০) নামে ওই চক্ষু চিকিৎসক প্রতিদিন তার মানসিক প্রতিবন্ধী মেয়েকে নিয়ে চেম্বারে যেতেন। এমনকি বাইরে বের হলেও মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে যেতেন ওই চক্ষু চিকিৎসক। যদিও গত কয়েকদিন চিকিৎসক এবং তার মেয়েকে বাইরে দেখা যায়নি। বৃহস্পতিবার সকালে চক্ষু চিকিৎসকের মেয়ে বাবার মৃত্যুর কথা প্রতিবেশীদের জানালে তারা পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ এসে মৃতদেহটি উদ্ধার করে।

প্রতিবেশীদের বক্তব্য মৃতদেহ দেখে তাদের সন্দেহ দিন তিনেক আগে ওই চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। তাদের বক্তব্য, মৃত চিকিৎসকের স্ত্রীও মানসিক রোগী ছিলেন এবং বছরখানেক আগে তিনি মারা যান। তারপর থেকেই মানসিক প্রতিবন্ধী মেয়েকে নিয়ে ফ্ল্যাটে একাই থাকতেন ওই চক্ষু চিকিৎসক।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here