দেশে প্রয়োজন ১ কোটি, রয়েছে ৩.২৮ কোটি হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন : স্বাস্থ্য মন্ত্রক

আমাদের ভারত, ১০ এপ্রিল: এই মুহূর্তে দেশের প্রয়োজন ১ কোটি হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন বা এইচসিকিউ ট্যাবলেটের। কিন্তু সেখানে দেশের হাতে আছে ৩.২৮ কোটি ট্যাবলেট। শুক্রবার দৈনিক করোনা সংক্রান্ত রিপোর্ট দিতে গিয়ে এই তথ্য দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী যুগ্মসচিব লব আগারওয়াল।

আমেরিকায় হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন রপ্তানির উপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতেই বিরোধীরা সরকারের সমালোচনায় মুখর হন। তাদের অভিযোগ দেশের মানুষের প্রয়োজন না ভেবে পদক্ষেপ নিল মোদী সরকার। বলা হচ্ছে মার্কিন রাষ্ট্রপতি
ট্রাম্পের হুমকির কাছে নতি স্বীকার করেই আমেরিকায় হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন রপ্তানিতে আংশিক নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয় ভারত সরকার। এদিন স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফে দেশে মজুদ হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের পরিসংখ্যান জানিয়ে কার্যত বিরোধীদের অভিযোগের পাল্টা জবাব দিল মোদী সরকার বলে মনে করছেন ওয়াকিবহাল মহল। বিদেশ মন্ত্রকের তরফেও আগেই জানানো হয়েছিল মানবিক কারণেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

একই সঙ্গে দেশের মানুষের মধ্যেও এই বিষয়টি নিয়ে যে দোলাচল তৈরি হয়েছিল তার দূর করে আশঙ্কামুক্ত করার চেষ্টা করছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক।

এদিন বিদেশ মন্ত্রকের সহকারি সচিবও লব আগরওয়ালের কথায় সুর মিলিয়ে বলেন, অনেক দেশই হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন চেয়ে অনুরোধ করেছে। দেশের পরিস্থিতি দেখে এবং নিজেদের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন মজুদ করার পরেই মন্ত্রিগোষ্ঠীর সিদ্ধান্ত নিয়েছে কিছু অতিরিক্ত ওষুধ রপ্তানি করা হবে। এটি একটি চালু প্রক্রিয়া।

একই সঙ্গে এই বিষয়ে লব আগারওয়াল জানিয়েছেন র্যাপিড ডায়াগনস্টিক অনুমোদন দিয়েছে কেন্দ্র। স্বাস্থ্যমন্ত্রকে যুগ্ম সচিব জানান বৃহস্পতিবার ১৬০০২ জনকে পরীক্ষা করা হয়েছিল। তাদের মধ্যে ০.২% আক্রান্ত। অর্থাৎ সংক্রমনের হার খুব বেশি নয় বলে আশ্বস্ত করেছেন। তিনি দেশবাসীকে অযথা আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। তার কথায়,” ভারতে এখনো গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হয়নি। তাই আতঙ্কিত হবেন না সতর্ক থাকুন। আমরা যদি সব সর্তকতা অবলম্বন করি তাহলে ভয় নেই।”

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here