সাবধান! রাজনৈতিক প্ররোচনায় পা দেবেন না, ঘরে বসে ঠাকুর দেখুন: জয় বন্দ্যোপাধ্যায়

আমাদের ভারত, হাওড়া, ২৩ অক্টোবর: করোনা সংক্রমণ থেকে দূরে থাকুন। রাজনৈতিক প্ররোচনায় পা–দিয়ে মণ্ডপে মণ্ডপে ঘুরে বেড়াবেন না। এই বছর বাড়িতে বসে ঠাকুর দেখুন। ঘরে বসে আনন্দ উপভোগ করুন। করোনার হাত থেকে নিজে বাঁচুন অন্যকে বাঁচান। করোনাকে হারিয়ে শুক্রবার বাড়িতে ফিরে রাজ্যের মানুষের কাছে এই আবেদন করেন বিজেপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য জয় বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন জয় বলেন, এই রোগটা আমার হওয়ার পর আমি জানলাম এটা মনুষ্য জীবনের এক অভিশাপ। এই রোগের সঠিক চিকিৎসা সম্পর্কে এখনো পর্যন্ত চিকিৎসকরা চিন্তায় আছেন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কতকগুলি ওষুধ বলেছে, সেগুলো দিয়ে চিকিৎসকরা আপ্রাণ চেষ্টা করে চলেছেন। জয় বলেন, আমার এমনিতে শারীরিক কিছু সমস্যা ছিল, সেই কারণে এই রোগটা আমার ক্ষেত্রে চিন্তার ছিল। তবে চিকিৎসক থেকে স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রয়াসে আজ আমি করোনাকে হারিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছি।

তিনি বলেন এই রোগটা কোথা থেকে এসেছে কেউ জানে না এবং মানব শরীরে বাসা বাঁধার পর কোন কোন অঙ্গ প্রত্যঙ্গের ক্ষতি করবে সেটাও কারোর জানা নেই। আমার শরীর থেকে করোনাকে তাড়াতে গিয়ে কোন অঙ্গ প্রত্যঙ্গের কি ক্ষতি হয়েছে সেটা চিকিৎসক জানে না, বিজ্ঞানও জানে না। জয় বলেন, বাড়িতে গিয়ে আমাকে অন্তত ২০ দিন হোম আইসোলেশনে থাকতে হবে, তারপর আস্তে আস্তে জানা যাবে শরীরের কোন অঙ্গ প্রত্যঙ্গের কি ক্ষতি হয়েছে।

করোনা থেকে দূরে থাকতে সবাইকে মাক্স, গ্লাভস, স্যানিটাইজার ব্যবহার করা ছড়াও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার পরামর্শ দেন জয় বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, অজানা এই মারণ রোগেরসংক্রমণ রাজ্যে অনেকটা কমে গেলেও এখন আবার বাড়ছে, আর সেই কারণেই সবাইকে সাবধানে থাকতে হবে। নিজেদের জীবন বিপন্ন করে যেভাবে চিকিৎসক থেকে স্বাস্থ্যকর্মীরা করোনা আক্রান্ত রোগীদের পরিষেবা দিয়ে যাচ্ছেন তার জন্য সকলকে ধন্যবাদ জানান বিজেপি নেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রসঙ্গত গত ১২ অক্টোবর থেকে করোনা আক্রান্ত হয়ে জয় বন্দ্যোপাধ্যায় কলকাতায় বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। একাধিকবার তাঁর করোনা পরীক্ষা করার পর বৃহস্পতিবার তার রেজাল্ট নেগেটিভ আসলে শুক্রবার তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়। বিজেপি নেতার পরিবার সূত্রে খবর বর্তমানে জয়ের শারীরিক অবস্থা অনেকটাই ভালো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here