মদ্যপ অবস্থায় ট্রেন চালানোর অভিযোগ চালকের বিরুদ্ধে

স্নেহাশিস মুখার্জি, আমাদের ভারত, নদিয়া, ১৬ জানুয়ারি: মদ্যপ অবস্থায় ট্রেন চালানোর অভিযোগ চালকের বিরুদ্ধে। নির্দিষ্ট স্টেশনে ট্রেন না দাঁড়ানোয় গার্ডের তৎপরতায় পরের স্টেশনে থামলো ট্রেন।বুধবার রাতে বড় ধরণের দুর্ঘটনার হাত থেকে রেহাই পেল রাতের ডাউন শান্তিপুর লোকালের যাত্রীরা। বুধবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার ফুলিয়ায়। আর এই ঘটনার পর আবার প্রশ্নের মুখে রেলের যাত্রী নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

সূত্রের খবর, শিয়ালদহ থেকে রাত ৯ .৫০ এর ৩১৫৩৯ আপ শান্তিপুর লোকাল প্রত্যেক দিনের মতন বুধবারও নির্দিষ্ট সময়ে তার যাত্রা শুরু করে। যাত্রীদের অভিযোগ, রানাঘাট স্টেশন ছাড়ার পর থেকেই ট্রেনটি অতিরিক্ত গতিতে চলতে থাকে। অভিযোগ, হবিবপুর স্টেশন ছাড়ার পর থেকেই ট্রেনটি অতিরিক্ত গতি নিয়ে চলতে থাকে এবং রাত ১১.৫৪ মিনিটে ফুলিয়া স্টেশনে স্টপেজ থাকার পরও সেখানে না থেমে দ্রুত গতিতে ফুলিয়া স্টেশন ছাড়িয়ে ট্রেনের গার্ডের তৎপরতায় পরের স্টেশন বাথনায় গিয়ে দাঁড়ায় ১১ .৫৮ মিনিটে। এই ঘটনার জেরে যাত্রীদের মধ্যে ব্যাপক আতঙ্কের সৃষ্টি হয়। যাত্রীদের অভিযোগ, ট্রেনের চালক মদ্যপ অবস্থায় ট্রেন চালানোর জন্যই এই বিপত্তি। এই ঘটনার পর চালক ও গার্ডকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখায় যাত্রীরা। পরে রেলের উচ্চ পদস্থ আধিকারিকদের বিষয়টি জানানো হলে শান্তিপুর স্টেশনে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্রেনকে পাঠিয়ে বাথনা স্টেশন থেকে ফুলিয়ায় যাত্রীদের পুনরায় ফুলিয়ায় পৌঁছে দেওয়া হয়।

এই ঘটনার পর থেকেই যাত্রী নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন যাত্রীরা। অভিযোগ, প্রত্যেকদিন রাতের ওই ট্রেনে কয়েকশ ছানা ব্যবসায়ী সহ বহু পেশার মানুষ ফেরেন। এই রকম ঘটনায় ট্রেনটি দুর্ঘটনার কবলে পড়লে শতাধিক মানুষের প্রাণ সংশয় হতে পারত।

যদিও এই বিষয়ে রেলের তরফে ড্রাইভারের মদ্যপান করে থাকার অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। পূর্ব রেলের জনসংযোগ আধিকারিক নিখিল চক্রবর্তী জানান, ট্রেনের চালক ও গার্ডের পরীক্ষা করার পর মদ্য পানের কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তবে কি কারণে এমন ঘটলো তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here