উলঙ্গ- মাতাল অবস্থায় থাইল্যান্ডের বৌদ্ধ মঠে তাণ্ডব বাংলাদেশি মহিলা পর্যটকের, নিন্দার ঝড় নেট দুনিয়ায়

আমাদের ভারত, ১২ আগস্ট:থাইল্যান্ডের বৌদ্ধ মঠে এক নগ্ন মাতাল মহিলার তান্ডবের ভিডিও ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। বাংলাদেশের এক মহিলা পর্যটক মাতাল অবস্থায় বিবস্ত্র হয়ে পথচারীদের উদ্দেশ্যে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করতে শুরু করেন। সেই ভিডিও ভাইরাল হতেই নিন্দার ঝড় উঠেছে। বাংলাদেশী ওই মহিলার নাম ফারহা হক।

সোমবার সন্ধ্যায় থাইল্যান্ডের উত্তরাঞ্চলের চিয়াংমাই এলাকায় একটি বৌদ্ধমঠে ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানিয়েছে থাইল্যান্ড পুলিশ। স্থানীয় মানুষের অভিযোগ বৌদ্ধমঠের গেটে দাঁড়িয়ে কখনও বা বসে সম্পূর্ণ নগ্ন অবস্থায় ওই মহিলাকে অশ্লীল ভাষায় চিৎকার-চেঁচামেচি করতে দেখে কয়েকজন এগিয়ে এসে তাকে সেখান থেকে চলে যেতে বলে। কিন্তু ওই নগ্ন মহিলা পাল্টা তাদের গালিগালাজ করতে শুরু করেন বলে অভিযোগ। এরপরই বাধ্য হয়ে তারা পুলিশে খবর দেয়।

পুলিশ এসে ওই মহিলাকে আটক করে এবং স্থানীয় একটি হাসপাতালের সাইক্রাইটিক বিভাগে ভর্তি করে। থাইল্যান্ডের চিয়াং মাই থানার পুলিশকর্তার কথা অনুযায়ী, ফারহা একজন পর্যটক হিসেবে থাইল্যান্ডে আসেন। এরপর গত এপ্রিল মাসে সেখানে একটি স্থানীয় স্কুলে ইংরেজি শিক্ষিকা হিসেবে যোগ দেন। শহরের একটি হোস্টেলে তিনি থাকতে শুরু করেন। ওই মহিলার বয়স ২৮ বছর বলে জানিয়েছে পুলিশ।

স্থানীয় মানুষ তথা প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশের অনুমান অতিরিক্ত মদ্যপানের কারণেই এই আচরণ করেছেন ফারহা। নেশার ঘোরেই নিজের শরীরের সমস্ত পোশাক খুলে বৌদ্ধমঠের উপরে উঠে পড়েন তিনি। শুধু তাই নয় স্থানীয় বাসিন্দাদের সামনে কুরুচিকর ভাষায় তীব্র চিৎকার করতে থাকেন তারস্বরে। চিৎকার করেন স্লোগান দেন। অনেকে আবার অভিযোগ করেছেন বৌদ্ধমঠে গিয়ে তিনি নিজের ধর্মীয় স্লোগান দিতে শুরু করেন।

হাসপাতালে ভর্তি করার পর তার মানসিক পরীক্ষা করা হয়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য এর আগেও ওই মহিলাকে মদ্যপ অবস্থায় ওই অঞ্চলের রাতের বেলায় ঘোরাফেরা করতে দেখেছেন অনেকে বলে অভিযোগ।

থাইল্যান্ডের বাংলাদেশ দূতাবাসে বিষয়টি জানানো হয়েছে। হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর ফারহাকে শাস্তি ও জরিমানা করা হতে পারে বলেও খবর।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here