জেলার খবর

বুলবুলের আতঙ্ক কাটিয়ে স্বাভাবিকের পথে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা

আমাদের ভারত, পূর্ব মেদিনীপুর, ১০ নভেম্বর: ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের আতঙ্ক কাটিয়ে স্বাভাবিকের পথে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা। উপকূলবর্তী এলাকা রামনগর, খেজুরি, নন্দীগ্রামের বেশ কিছু কাঁচা বাড়ি ঝড়ে পড়ে গেলেও এখনো নন্দীগ্রামের ভেকুটিয়াতে গাছ ভেঙ্গে পড়ে এক মহিলার মৃত্যু ছাড়া আর কোনও মৃত্যুর খবর নেই জেলায়। জেলার বিভিন্ন জায়গায় চাষের ক্ষতি হয়েছে প্রচুর। গতকালের দিনভর বৃষ্টি এবং ঝড়ের দাপটে ধান সবজি ও ফুলের প্রচুর ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে।

“বুলবুল” ঝড়ে বিপর্যস্থ খেজুরির বিস্তীর্ণ এলাকা। ভেঙ্গে পড়েছে গাছ, ঘরবাড়ি ও বিদ্যুতের খুঁটি। বহু এলাকা গতকাল থেকে এখনো পর্যন্ত বিদ্যুৎ হীন। ঝড় বৃষ্টি থেমে গেলেও স্বাভাবিক ছন্দে ফিরতে এখনো বেশ কিছুটা সময় লাগবে খেজুরির। বৃষ্টির পরিমাণ খুব বেশী না হলেও ঝোড়ো হাওয়া ও টানা বৃষ্টিতে ধান, পান ও সবজির ক্ষতি হয়েছে প্রচুর। তারসঙ্গে ক্ষতি হয়েছে ফুলেরও।

এছাড়াও মন্দারমনি সংলগ্ন নিউ জলধা মৎস্য খটির পলি হাউসের পলিথিন ছিঁড়ে গেছে ঝোড়ো বাতাসে। জলে ভিজে গেছে প্রচুর পরিমাণ শুঁটকি মাছ। শুকনো মাছ জলে ভিজে যাওয়ায় তা নষ্ট হয়ে যাবে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কয়েক লক্ষ টাকা ব্যয়ে নির্মিত এই পলিহাউসের। শুঁটকি মাছের সাথে যুক্ত সকল মৎস্যজীবীদের ক্ষতি হবে এই ঝড়বৃষ্টিতে। বলছেন মৎস্যজীবীরা।

আজ সকাল থেকে অবশ্য আকাশের মুখভার কেটে গিয়েছে দেখা দিয়েছে সূর্য। মাঝে মাঝে মেঘলা থাকলে আজ সারাদিনে বৃষ্টি প্রায় হয়নি। তাই গতকালের ঝড়ের আতঙ্ক কাটিয়ে আবার স্বাভাবিক ছন্দে ফিরতে শুরু করেছেন জেলার মানুষ। ক্ষয়ক্ষতির জন্য তাকিয়ে আছেন সরকারি সাহায্যের দিকে। সাময়িক ত্রাণ সাহায্যে পেলেও বাড়িঘর ও চাষের যে বিপুল ক্ষতি হয়েছে সেগুলো পূরণের জন্য সরকারের সাহায্যের আশায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ।

Leave a Comment

13 + 18 =

Welcome To Amaderbharat. We would like to keep you updated with the Latest News.