বনগাঁয় ভাইয়ের স্ত্রীর গায়ে অ্যাসিড, গ্রেফতার দাদা ও বৌদি

আমাদের ভারত, উত্তর ২৪ পরগণা, ১৭ জুন: পারিবারিক অশান্তির জেরে ভাইয়ের স্ত্রীর গায়ে অ্যাসিড ঢেলে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ উঠল দাদা বৌদির বিরুদ্ধে। অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ গ্রেফতার করল অভিযুক্তদের। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর চব্বিশ পরগনা গোপালনগর থানার সন্তোষপুর গ্রামে। অভিযুক্ত দাদা নিমাই দাস ও বৌদি রত্না দাস। ধৃতদের বুধবার বনগাঁ মহকুমা আদালতে তোলা হলে বিচারক ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেয়।

ভাই গৌতম দাসের অভিযোগ, মঙ্গলবার সকাল থেকেই বাড়ির দুই বৌয়ের মধ্যে অশান্তি চলে। সন্ধ্যায় অশান্তি চরমে ওঠে। দাদা ও বৌদি হঠাৎ তাদের পরিবারের ওপর চড়াও হয়। দাদা নিমাই দাস সহ পরিবারের ৫ জন সদস্য লাঠি লোহার রড নিয়ে ধেয়ে আসে। সেই সময় হঠাৎ গৌতমবাবুর স্ত্রীকে লক্ষ্য করে অ্যাসিড ছোড়া হয় বলে অভিযোগ। অ্যাসিড হামলায় গুরুতর আহত হয় গৌতমবাবুর স্ত্রী। তাঁর সারা শরীর পুড়ে যায়। এমনকি মুখের এক পাশেও অ্যাসিড লাগে। তাকে তড়িঘড়ি বনগাঁ মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

ঘটনার পর দাদা ও বৌদির নামে গোপালনগর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ভাই গৌতম দাস। অভিযোগের ভিত্তিতে রাতে দাদা নিমাই দাস ও তার স্ত্রী রত্না দাসকে গ্রেফতার করে গোপালনগর থানার পুলিশ। এই ঘটনায় এলাকায় ব্যপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here