ট্রেনে ছিনতাইবাজদের হামলায় থমকে গেছে মা-মেয়ের স্বপ্নের লড়াই, কন্যার ছবির সামনে কেক কেটে চোখের জলে জন্মদিন পালন বাবার 

ট্রেনে ছিনতাইবাজদের হামলায় থমকে গেছে মা-মেয়ের স্বপ্নের লড়াই, কন্যার ছবির সামনে কেক কেটে চোখের জলে জন্মদিন পালন বাবার 

আমাদের ভারত, দুর্গাপুর, ৮ আগস্ট: মেয়ে আজ ২২ বছরে পড়েছে। অনটনের সংসারে দু’চোখে স্বপ্ন ছিল চিকিৎসক হয়ে দুঃস্থের সেবা করার। আর সেই ডাক্তারির পড়ার জীবনযুদ্ধ থমকে গেছে। রাজস্থানের কোটায় ডাক্তারি পড়তে যাওয়ার পথে মথুরায় ট্রেনে ছিনতাইবাজদের খপ্পরে পড়ে মা। ডাক্তারি পড়ার জরুরি নথি পত্র কেড়ে নেওয়ায় ছিনতাইবাজদের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয়। তখনই ছিনতাইবাজদের ধাক্কায় ট্রেন থেকে পড়ে যায় মা। আর মাকে বাঁচতে ট্রেন থেকে ঝাঁপ দেয় মেয়ে। পরিণাম মৃত্যু। ছিন্নভিন্ন হয়ে যায় তাদের শরীর। মর্মান্তিক পরিণতি খবরটা মুহুর্তেই গোটা দেশে ছড়িয়ে পড়ে।

হ্যাঁ, এতক্ষণ যাদের কথা বলছিলাম, দুর্গাপুরের রাঁচি কলোনীর বাসিন্দা মনীষা ডোম ও তার মা মীনা দেবী। আর আজকের দিনেই জন্ম হয়েছিল মনীষার। গত ২ আগস্ট তাদের জীবনযুদ্ধের লড়াই শেষ হয়ে যায়। বৃহস্পতি মনীষার বাড়িতে জন্মদিন পালন হয়। তবে ছিল না কোনও আড়ম্বর। তার ছবির সামনে জ্বলছিল দ্বীপশিখা। মনীষার বাবা দিলীপ ডোম বুকের মধ্যে একরাশ শূন্যতা নিয়ে কেক কাটলেন। মুহুর্তেই বুকের মধ্যে আঁকড়ে থাকা যন্ত্রনা উগরে উঠল চোখ দিয়ে বাঁধ ভাঙা জল হয়ে।

দিলীপ বাবু বলেন,” আজ মেয়ে ২২ বছরে পড়ল। অন্যান্যবার এই দিনটায় স্ত্রী মীনা, মেয়ের জন্য কেক বানাতেন, বানাতেন নানাবিধ পদও। বাড়িতে অতিথিদের সমাগম হত, হত খাওয়াদাওয়া।  কিন্তু আজ দুজনেই সহস্র যোজন দূরে। তাই মেয়ের ছবি রেখেই জন্মদিন পালন।” মনীষার ছবির সামনে পড়ার বই, কেক রেখে কাটা হল। ছবিতেই কেক খাইয়ে সজল নয়নে মনীষাকে স্মরণ করল পরিবার। মেয়ের স্মৃতিকে আঁকড়ে ধরে রাখার চেষ্টাতেই  জন্মদিন পালন দিলীপবাবুর। 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × 2 =