গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মঘাতী ছেলে, শোকে তিন দিন ধরে নিখোঁজ বাবা

স্নেহাশীষ মুখার্জি, আমাদের ভারত, নদিয়া, ১৫ সেপ্টেম্বর: ছেলে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে আর সেই শোকে মানসিক অবসাদে তিন দিন ধরে নিখোঁজ বাবা। মৃতের নাম সুজয় দাস (১৮)। নদিয়ার কৃষ্ণগঞ্জের আদিত্যপুর দাস পাড়ার ঘটনা।

জানা যায়, মৃত সুজয় দাস রং মিস্ত্রির কাজ করতো। বাড়ির বড় ছেলে ছিল সুজয় দাস। হঠাৎ সে গলায় দড়ি দেয় গত রবিবার। গলায় দড়ি দেবার দিন সন্ধ্যে পর্যন্ত পাড়ার ছেলেদের সাথে আড্ডাও মেরেছিল সুজয়। সন্ধ্যের পর সে নিজের বাড়িতে আসে। তার মার সঙ্গে কথা বলে। তারপর সে নিজের ঘরে গিয়ে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করে। রাত আটটার সময় পরিবারের লোকজন দেখে সুজয় গলায় দড়ি দিয়েছে। ঘরে কান্নার রোল পড়ে যায়। তাদের চিৎকার কান্নার শব্দে পাড়ার লোকেরা ছুটে আসে। সঙ্গে সঙ্গে সুজয়ের ঝুলন্ত দেহ নামিয়ে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। তবে ছেলের আত্মহত্যার ঘটনা বাবলু দাস মেনে নিতে পারেননি। ছেলের অস্বাভাবিক মৃত্যুর শোকে তিনদিন ধরে তিনি ঘরছাড়া।

স্থানীয় মানুষের দাবি, তারা বিভিন্ন জায়গায় বাবলুবাবুর খোঁজ করেছেন, কিন্তু তাঁর কোনও সন্ধান এখনও তাঁরা পাননি। একেই সুজয়ের অস্বাভাবিক মৃত্যুতে পরিবার সহ আদিত্যপুরে নেমে এসেছে শোকের ছায়া তার ওপর বাবলু বাবু আজ তিন দিন ধরে নিখোঁজ পরিবারকে করে তুলেছে আরও অসহায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here