হাসপাতালের মহিলা সাফাই কর্মীকে বেধড়ক মারধর, ঘরের জিনিসপত্র ভাঙ্গচুরের অভিযোগ প্রতিবেশী দুই যুবকের বিরুদ্ধে

স্বরূপ দত্ত, আমাদের ভারত, উত্তর দিনাজপুর, ১৩ মে:
হাসপাতালের মহিলা সাফাই কর্মীকে বেধড়ক মারধর করার পাশাপাশি ঘরের জিনিসপত্র ভাঙ্গচুর করার অভিযোগ উঠল স্থানীয় দুই যুবকের বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। ঘটনাটি ঘটেছে রায়গঞ্জ থানার মহারাজা এলাকায়। এই ঘটনায় ওই তিন যুবকের বিরুদ্ধে রায়গঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই মহিলা।

পরিবারসূত্রে জানা গিয়েছে, রায়গঞ্জ থানার মহারাজা এলাকায় বাসিন্দা কৃষ্ণাদাস রায়ের বাড়িতে, পাশের বুলবুল রায়ের বাড়ির একটি বাঁশ চলে আসে। ওই বাশঁটিকে কাটার জন্য বারংবার বলা সত্বেও বুলবুল সেই বাঁশটিকে কাটছে না বলে অভিযোগ। বুধবার কৃষ্ণাদেবী রায়গঞ্জ হাসপাতালে সাফাইয়ের কাজ করে বাড়ি আসার পর বুলবুলকে বাঁশটি কাটতে বলে। তখন বুলবুল কৃষ্ণাদেবীকে গালিগালাজ করলে দুজনের মধ্যে গন্ডগোল শুরু হয়। বুলবুল ও তার ভাই টুলটুল রায় ও বুলবুলের বন্ধু বিপ্লব রায় তিনজন মিলে কৃষ্ণাদেবীকে বেধড়ক মারধর করে এবং ঘরের জিনিসপত্র ভাঙ্গচুর করে বলে অভিযোগ। স্থানীয়া কৃষ্ণাদেবীকে তড়িঘড়ি মহারাজা ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যায়। কৃষ্ণাদেবীর অবস্থার অবনতি হওয়ায় চিকিৎসক তাকে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর নির্দেশ দেয়। এই ঘটনায় ওই তিনজনের বিরুদ্ধে রায়গঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন কৃষ্ণাদেবী। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here