তৃণমূল নেতাকে সঙ্গে নিয়ে স্যানিটাইজ করতে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে দমকল কর্মীরা

আমাদের ভারত, মেদিনীপুর, ১৫ জুন: সোমবার  এক তৃণমূল নেতাকে সঙ্গে নিয়ে নারায়ণগড় ব্লকের করোনা আক্রান্ত এলাকাগুলোতে স্যানিটাইজ করতে গেলে বেলদার দেউলিতে দমকল কর্মীদের বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয়।

কিছুদিন আগে নারায়ণগড় ব্লকের বাখারাবাদ অঞ্চলের  বরদাইতে প্রথম করোনা আক্রান্তের হদিস মেলে। চব্বিশ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই ওই ব্লকের বিভিন্ন স্কুলের অস্থায়ী কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে থাকা বহিরাগত পরিযায়ীদের দশ জনের করোনা পজেটিভ রিপোর্ট সামনে আসে। আতঙ্কিত হয়ে পড়েন এলাকাবাসীরা। আজ সোমবার প্রশাসন দমকল দিয়ে ওই সমস্ত স্কুলগুলির কোয়ারেন্টাইন সেন্টার স্যানিটাইজ করার উদ্যোগ নেয়। সেইমতো হেমচন্দ্র অঞ্চলের বড়মোহনপুর হাই স্কুল এবং আসন্দা হাই স্কুলের পর দমকল কর্মীরা বেলদা থানা এলাকার দেউলিতে স্যানিটাইজ করতে যান। কিন্তু দমকলের কর্মীদের সঙ্গে থাকা এক তৃণমূল নেতাকে দেখে এবং আক্রান্ত এলাকাগুলিতে না গিয়ে কেবলমাত্র কোয়ারেন্টাইন সেন্টার এবং বাজার স্যানিটাইজ করছে দেখে দমকল কর্মীদের ঘিরে বিক্ষোভ দেখান বিজেপির স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্য ও এলাকার বাসিন্দারা।

তাদের দাবি, মূল আক্রান্ত এলাকায় গিয়ে দমকলকে স্যানিটাইজ করতে হবে। বিক্ষোভকারীরা জানান, দমকল কর্মীদের সঙ্গে যে তৃণমূল নেতা রয়েছেন তিনি একসময়  আক্রান্তদের সংস্পর্শে গিয়েছেন। তাই তার উপস্থিতি নিয়ে এলাকাবাসীদের আপত্তি রয়েছে। আমরা চাইছি করোনা মোকাবিলার জন্য রাজনীতি বাদ দিয়ে কোনো রাজনৈতিক নেতানা পাঠিয়ে এলাকায় যেভাবে যা কিছু করা প্রয়োজন করা হোক।এলাকাবাসীরা সর্বতোভাবে সহযোগিতা করবেন। যারা আক্রান্তদের সংস্পর্শে গেছেন তাদেরকেও কোয়ারেন্টাইন করা হোক।

এই বিষয়ে নারায়ণগড়ের বিধায়কের প্রতিনিধি শেখ কাউসার আলি বলেন, এলাকাবাসীদের সুস্থতার কথা ভেবে ব্লক প্রশাসনকে জানিয়ে আক্রান্ত এলাকাগুলোতে দমকল দিয়ে স্যানিটাইজ করার ব্যবস্থা করেছি।আক্রান্তদের সংস্পর্শে যারা গেছিলেন তাদেরকে করেন্টাইন করার দাবি উঠলেও তাদের কোনো রকম করোনার উপসর্গ নেই। থাকলে ব্লকের স্বাস্থ্য দপ্তর থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করা হবে। স্বাস্থ্য দপ্তর সব রকম পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here