“সরকার সাহায্য না করলে আত্মহত্যা করতে বাধ্য হবেন ফুলচাষিরা”

স্নেহাশীষ মুখার্জি, আমাদের ভারত, নদিয়া, ২২ মে:
একেই লকডাউন তার ওপর আমফান, দেনার দায়ে জর্জরিত নদিয়ার ফুলচাষিরা তাই চাইছে সরকারের কাছে আর্থিক সাহায্য। সরকার সাহায্য না করলে ঋণের দায়ে আত্মহত্যার পথই বেছে নিতে বাধ্য হবে এমনই জানালেন নদিয়ার ফুলচাষিরা।

করোনা আতঙ্কে লকডাউন চলছে প্রায় তিন মাস। আর এই লকডাউনের ফলে সব থেকে ক্ষতিগ্রস্থ নদিয়ার ফুলচাষিরা। নদিয়ার পূর্ণ নগর, চাপড়া, ধানতলা সহ বিস্তীর্ণ এলাকায় মূলত ফুলের চাষ করেই সংসার চালান চাষিরা। অভিযোগ, প্রত্যেক বছর ব্যাঙ্ক ও স্থানীয় মহাজনদের কাছ থেকে টাকা ধার করে ফুলের চাষ করেন চাষিরা। কিন্তু এবছর লকডাউনের কারণে সমস্ত সামাজিক অনুষ্ঠান বন্ধ থাকায় ফুলের কোনো বিক্রিই নেই। ফলে জমির ফুল জমিতেই নষ্ট হচ্ছে। এর উপর আমফানের মতো ঘূর্ণি ঝড়ের তান্ডব, যার জেরে মাঠের ফুল গাছ সম্পূর্ণ ভাবে নষ্ট হয়ে গেছে। ক্ষতি হয়েছে লক্ষ লক্ষ টাকার ফুল গাছের। কেউবা ধার নিয়েছেন মহাজনের কাছ থেকে আবার কেউবা ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ নিয়েছে। বর্তমানে যেটুকু বাগান ছিল আমফানের তাণ্ডবে সব শেষ।

বিশেষ করে জারবেরা, চন্দ্রমল্লিকা রজনীগন্ধা, গোলাপের মত দামি ফুল চাষ করতে খরচ হয় প্রচুর পরিমাণে। মহাজনের টাকা বা ব্যাংকের ঋণের শতকরাটাই চাষিদের কাছে বোঝা। কি করে তাদের ঋণ শোধ করবে তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় নদিয়ার ফুল চাষিরা। তাদের আশঙ্কা, সরকার যদি ফুল চাষিদের জন্য কোনো আর্থিক সাহায্যের ব্যবস্থা না করে তবে দেনার দায়ে অনেক চাষিই আত্মহত্যা করতে বাধ্য হবে। এখন ফুল চাষিদের জন্য সরকার কি ব্যবস্থা নেয়, সেদিকেই তাকিয়ে ফুল চাষিরা।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here