করোনা নিয়ে শ্রমজীবী মানুষদের সচেতন করার উদ্যোগ প্রাক্তন পঞ্চায়েত সদস্যের

আমাদের ভারত, পশ্চিম মেদিনীপুর, ১৯ মার্চ:
নারায়ণগড়: ইতিমধ্যেই নোবেল করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে জর্জরিত বিশ্বের প্রায় সমস্ত দেশ। ধীরে ধীরে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে স্কুল, কলেজ, অফিস থেকে সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলি।ইতিমধ্যেই বন্ধের মুখে কিছু বেসরকারি কল কারখানা।রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর থেকে শুরু করে ব্লক স্বাস্থ্য দপ্তরের পক্ষ থেকে সচেতন করা হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। অন্যদিকে ক্লাব সংগঠনগুলিও নেমে পড়েছে সাধারণ মানুষকে সচেতন করে তোলা এবং গুজবের কান না দেওয়ার জন্য। সেই সচেতনতায় নতুন মাত্রা যোগ করেছেন এক প্রাক্তন গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য সুশান্ত ধল। তিনি ১০০ দিনের প্রকল্পে কাজ করতে আসা শ্রমজীবী মানুষদের করোনা ভাইরাসের সম্বন্ধে সচেতন করছেন। সতর্কতামূলক প্রচার চালাচ্ছেন পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার নারায়ণগড় ব্লকের খালিনা এলাকায়।

জানাগেছে, এলাকায় ১০০ দিনের প্রকল্পে চলছে এলাকা পরিষ্কার অভিযান এবং খাল ও পুকুর খননের কাজ। এই কাজের জন্য সমস্ত কর্মচারীদের দেওয়া হচ্ছে সাবান থেকে শুরু করে নাক ও মুখ ঢাকার মাক্স। তার এই অভিনব উদ্যোগ দেখে আপ্লুত এলাকার মানুষ।

এই ১০০ দিনের প্রকল্পে কাজ করা শ্রমিক আনন্দ বেজ, অসিত দোলাইরা বলেন, প্রাক্তন পঞ্চায়েত সদস্য সুশান্ত ধলের উদ্যোগ ও সুন্দর প্রচেষ্টা দেখে যথেষ্ট আপ্লুত হয়েছি আমরা। এছাড়াও তিনি যে আমাদের সাথে রয়েছেন তাতেও খুশি হয়েছি আমরা।

অন্যদিকে প্রাক্তন পঞ্চায়েত সদস্য সুশান্ত ধল বলেন, গ্রামের এখনো কিছু মানুষ রয়েছেন যারা এই ভাইরাস কিভাবে আসছে এবং তা আটকানোর জন্য আমাদের কি করা উচিত তা সঠিকভাবে জানেন না। এইসব দিনমজুরদের সবার বাড়িতে টিভি নেই। ফলে বাইরে থেকে শুনে এবং গুজবে অনেকে প্রভাবিত হচ্ছেন। এই ভাইরাস রোধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ কি সে সব জানিয়ে মানুষদের সচেতনাতা করার লক্ষ্যেই আমাদের এই উদ্যোগ।

এছাড়াও এদিন উক্ত এলাকায় যে সকল বৃদ্ধ-বৃদ্ধারা বাড়ি থেকে বেরোতে পারেন না তাদের জন্য বাড়ি বাড়ি গিয়ে কিছু মাস্ক ও সাবান তুলে দেওয়া হয়েছে। তিনি জানান, আমরা আগামী দিনে বাড়ি বাড়ি গিয়ে সাধারণ মানুষকে এই ভাইরাস সম্বন্ধে আরো বেশি সচেতন করব এবং সেই সঙ্গে তাদেরকেও সাবান সহ বিভিন্ন সামগ্রী প্রদান করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here